যারা ধর্মের নামে মানুষ হত্যা করে তারা মুসলমান নয়: মালালা
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
পাকিস্তানের নারী শিক্ষা আন্দোলনের কর্মী, নোবেলজয়ী মালালা ইউসুফজাইকে ক্যানাডার সম্মানসূচক নাগরিকত্ব দেয়া হয়েছে৷ সে দেশের প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো এই সনদ তুলে দেন৷ পার্লামেন্টে দেয়া মালালার বক্তব্য এখন ভাইরাল৷ সনদ হস্তান্তর উপলক্ষে টরেন্টোর পিচ টাওয়ারে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়৷ এই অনুষ্ঠানে দেশটির মন্ত্রিপরিষদ সদস্য, কূটনীতিক ও বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত ছিলেন৷ ক্যানাডার সম্মানসূচক নাগরিকত্ব পাওয়ার দিক থেকে মালালা সর্বকনিষ্ঠ৷

পার্লামেন্টে দেয়া বক্তব্যে জাস্টিন ট্রুডোর উদ্দেশ্যে মালালা বলেন, ‘‘আমি ক্যানাডার সরকারকে ধন্যবাদ জানাই নারী শিক্ষাকে গুরুত্ব দেয়ার জন্য৷ পাশাপাশি মানবতা, শরণার্থী, নারীদের জন্য ক্যানাডার যে অবস্থান তা, অবশ্যই প্রশংসার দাবিদার৷'' নারী অধিকার, লিঙ্গ বৈষম্য ও শরণার্থীদের জন্য অবদান রাখায় ট্রুডোর প্রশংসা করেন মামালা৷

ক্যানাডার পার্লামেন্টে সর্বকনিষ্ঠ ব্যক্তিত্ব হিসেবে বক্তব্য রাখেন মালালা৷ বক্তব্যে মালালা বলেন, ‘‘২০১৪ সালে পার্লামেন্ট হিলে যে হামলা চালিয়েছিল সে নিজেকে মুসলিম বলে দাবি করেছিল, কিন্তু তার সাথে আমার বিশ্বাস মেলে না৷ বিশ্বের দেড়শ কোটি মুসলিম, যারা শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করছে তাদের বিশ্বাসের সঙ্গরেও ঐ ব্যক্তির বিশ্বাস মেলে না৷ কেননা ইসলাম ক্ষমা ও শান্তির প্রতীক৷ আমি একজন মুসলিম এবং আমি বিশ্বাস করি যদি তুমি ইসলামের নামে হাতে অস্ত্র তুলে নাও এবং অসহায়-নিষ্পাপ মানুষদের হত্যা করো তুমি কখনোই একজন মুসলমান হতে পারো না৷''

ট্রুডোর প্রসঙ্গে মালালা মজা করে বলেন, ‘‘শুনেছি তিনি যোগ ব্যায়াম করেন, শরীরে ট্যাটু আঁকেন এবং বিশ্বের অনেক মেয়েই এই তরুণ রাষ্ট্র প্রধানের জন্য পাগল৷ এখানে আসার পর আমি সেটার প্রমাণও পেয়েছি৷ কেননা আমি ক্যানাডার নাগরিকত্ব পেয়েছি বলে আমার সাথে দেখা করতে বা হাত মেলাতে মানুষ যতটা না আগ্রহী তার চেয়ে বেশি আগ্রহী ট্রুডোকে দেখতে এবং তার সঙ্গে ছবি তুলতে৷''

‘নাও দিস পলিটিকস' নামের ফেসবুকের এই পাতায় ভিডিওটি পোস্ট করার পর এ পর্যন্ত ১ লাখ ৫৬ হাজার বার শেয়ার হয়েছে৷ দেখা হয়েছে ১ কোটিরও বেশি বার৷ -ডয়েচেভেলে

১৮ এপ্রিল, ২০১৭ ১৪:২৫:২৭