সিডনিতে কঞ্জুস-এর সফল মঞ্চায়ন
কাজী সুলতানা শিমি
অ+ অ-প্রিন্ট
‘বাঙলা নাটকের শাশ্বত সুর ছড়িয়ে দাও বহুদূর’- এই শ্লোগানে গত শনিবার  সিডনিতে মঞ্চায়ন করা হয় কঞ্জুস”। শনিবার সন্ধ্যায় ব্যাঙ্কস টাউনের ব্রায়ান ব্রাউন থিয়েটার ও ফাংশন সেন্টারে এ নাটক মঞ্চায়নের মধ্য দিয়ে ‘সখের থিয়েটার’ তাদের যাত্রা শুরু করলো। ফরাসী নাট্যকার মলিয়্যরের স্যাটায়ারধর্মী হাসির নাটক ‘দ্য মাইজার’ অবলম্বনে কঞ্জুস নাটকটি বাংলা অনুবাদ করেছেন তারিক আনাম খান।

এক সময়কার ঢাকা থিয়েটার কর্মী ও নাটকটির নির্দেশক শাহীন শাহনেওয়াজের নির্দেশনায় নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেন মাসহুদা জামান ছবি, অরিজিত বড়ুয়া শাওন, মোহাম্মদ খান তুষার, ওয়াসিফ আহমেদ শুভ, শাহীন শাহনেওয়াজ, আফসানা রুচি, রনি জুবায়ের, তানিম মান্নান, শাহীন আক্তার স্বর্ণা, মেহবুব রানা হিলোল, শিরিন আক্তার ও সাদিয়া শাখাওয়াত। 

কাহিনী সংক্ষেপ: পুরানো ঢাকার ষাট বছরের এক হাড়কিপ্টে বুড়োর গল্প নিয়ে গড়ে উঠেছে এই নাটকের কাহিনী। এই কৃপন লোকটার নাম হায়দার আলী। তার পুএের নাম কাযিম আর কন্যার লাইলী। লাইলী ভালবাসে তাদের খাঁস নোকর বদি মিয়াকে যার সাথে পরিচয় হয়েছিল এক সমুদ্রতীরে। শুধু প্রেমের কারনেই নিজের পরিচয় গোপন করে বদি মিয়া লাইলীদের বাড়ীতে চাকরের কাজ নেয়। অন্যদিকে পুএ কাযিম প্রেমে পড়ে যায় পাশের মহল্লার মর্জিনার সঙ্গে। কিন্তু সমস্যা বাধেঁ তখন যখন কঞ্জুস হায়দার আলী পুএের প্রেমিকাকে বিয়ে করার জন্য ঘটকালির দায়িত্ব দেয় গোলাপজানকে।

অপরদিকে নিজের পুএের বিয়ে ঠিক করে এক বিধবার সঙ্গে এবং যৌতুকের টাকা বাঁচানোর জন্য কন্যা লাইলীর জন্য পাএ ঠিক করে তারই বন্ধু পঞ্চাশ বছর বয়সী আসলাম বেগের সঙ্গে । ঘটনা তুঙ্গে উঠে তখন,যখন কঞ্জুস হায়দার আলীর মাটির নীচে লুকিয়ে রাখা বিশ হাজার টাকা চাকর লাল মিয়া চুরি করে তারই পুএ কাযিমের হাতে তুলে দেয়। আরেক চাকর কালা মিয়া চুরির অপরাধে ফাঁসিয়ে দিতে চায় খাঁস নোকর বদি মিয়াকে। হায়দার আলী টাকার শোকে পাগল হয়ে পুলিশের কাছে নালিশ জানায়। ঘটনাস্থলে উপস্হিত হয় আসলাম বেগ। পরিশেষে জানা য়ায় লাইলীর প্রেমিক বদি ও কাযিমের প্রেমিকা মর্জিনা প্রকৃতপক্ষে আসলাম বেগেরই সন্তান। একসময় কাযিম জানায় যে সে চুরি যাওয়া টাকার হদিস জানে। যদি হায়দার আলী মর্জিনার সাথে তার বিয়েতে রাজি হয় তাহলে সে সমস্ত টাকা ফিরিয়ে দেবে। হায়দার আলী সন্তানদের বিয়েতে কোন টাকা খরচ করতে পারবে না বলে জানিয়ে দেয়, অবশেষে আসলাম বেগ বিয়েতে খরচের জন্য সমস্ত টাকাপয়সা দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিলে বদি- লাইলী এবং কাযিম–মর্জিনার বিয়ের সিদ্ধান্তের মাধ্যমে নাটকটির আনন্দময় পরিসমাপ্তি ঘটে ।

উল্লেখ্য, প্রর্দশনী শেষে সিডনীর নাট্যপ্রেমীরা মনে করেন,প্রবাসী জীবনের শত প্রতিকূলতা অতিক্রম করে নাটকটির সফল মঞ্চায়ন একটি মাইলফলক। তারা ভবিষ্যতে সখের থিয়েটারের কাছে আরও নতুন নতুন প্রযোজনা দেখতে আশাবাদী।  

 

 

১৫ মে, ২০১৮ ১২:১৫:৪১