সিডনিতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন
কাজী সুলতানা শিমি
অ+ অ-প্রিন্ট
সিডনির ইঙ্গেলবার্ন লাইব্রেরী হলে গত ২৪শে ফেব্রুয়ারি শনিবার, ২০১৮ সিডনি বাঙ্গালী কমিউনিটি ইনক্, মহান একুশ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করে। সেলিমা বেগমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানটির উদ্বোধন করা হয় এবারে সাংবাদিকতায় একুশে পদকপ্রাপ্ত ভাষা সৈনিক ও কলামিস্ট শ্রী রণেশ মৈত্রকে দিয়ে। রণেশ মৈত্র তার বক্তব্যে ২১ ফেব্রুয়ারীকে অস্ট্রেলিয়ায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস  হিসেবে জাতীয়ভাবে পালন  করার সিদ্ধান্ত নেয়ায় অস্ট্রেলিয়ার সরকারকে ধন্যবাদ জানান। তিনি আরও বলেন ১৯৭২ সালের সংবিধানকে পুনরায় প্রতিষ্ঠা করার জন্য সবাইকে একসাথে কাজ করতে হবে।  

অস্ট্রেলিয়ায় জাতীয়ভাবে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা পালনের সিদ্ধান্তের পরিকল্পক নির্মল পাল বলেন, বিশ্বজুড়ে শুধু বাংলাভাষায় এই দিনটি পালন করলে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসটির গুরুত্ব যতটা থাকবে তার চেয়ে অনেক বেশী গুরুত্বপূর্ণ হবে যদি সকল ভাষার লোকজনকে নিয়ে এই দিবসটি পালন করা যায়। প্রাক্তন ফেডারেল এম পি লরি ফার্গাসন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে ইউনেসকোর মাধ্যমে সারা পৃথিবীতে প্রতিষ্ঠার জন্য কানাডার ভ্যানকুভার শহরের দুই বাঙ্গালী রফিকুল ইসলাম এবং আবদুস সালামকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন মাতৃভাষা বিলুপ্ত হয়ে গেলে নিজের পরিচয়  থাকে না। অস্ট্রেলিয়ার আদিবাসীদের অনেক ভাষা আজ বিলুপ্ত এবং কিছু ভাষা বিলুপ্তের পথে।

মাতৃভাষা দিবসের অনুষ্ঠানসূচীতে  ছিল  শিশুকিশোরদের একুশ ও বাংলা ভাষায়, প্রবন্ধ,পাঠ,গান, নাচ, কবিতা আবৃত্তি ও দলগত সংগীতের পরিবেশনা। কিশালয়,কিশোর সংঘ ও নৃত্যকলা ড্যান্স  একাডেমী এই তিনটি শিশুকিশোর সংগঠনের পরিবেশন ছিল মন মুগ্ধকর । এছাড়াও নৃত্য পরিবেশন করে নুসাবা রহমান, গান পরিবেশন করে স্রোতশ্মিনী ও সামেন।বড়দের পর্বে  ছিল নৃত্য পরিবেশনায় অর্পিতা সোম, আবৃত্তিতে নুসরাত জাহান স্মৃতি এবং গানে ছিলেন সিডনির স্থানীয় শিল্পী আরফিনা মিতা ও আতিক হেলাল। 

ভাষা শহীদদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের পাশাপাশি নতুন প্রজন্মের কাছে বাংলা ভাষার ইতিহাস ও দেশী সংস্কৃতি তুলে ধরতেই মুলত এই আয়োজন। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পর শিশুকিশোরদের বাংলা ভাষা, বাংলা গান, চিত্রাঙ্কন ও নাচে বিভিন্ন বিষয়ে পুরস্কার বিতরণ করেন রণেশ মৈত্র, নির্মল পাল, প্রদ্যুৎ চুন্নু, প্রবীর মৈত্র ও আরও কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ।উল্লেখ্য যে, সম্প্রতি সিডনি বাঙালি কমিউনিটি ইন্ক্ বাংলাদেশের শহীদ মিনারের আদলে ক্যাম্পবেলটাউন এলাকায় একটি শহীদ মিনার তৈরী করার জন্য সিটি নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্য সরকার থেকে ৩৫৬১৬ ডলারের সরকারী অনুদান পান এবং বর্তমানে ক্যাম্পেলটাউন সিটি কাউন্সিলে শহীদ মিনার স্থাপনের জায়গা অনুমোদনের সিদ্বান্ত প্রক্রিয়াধীন। 

 

 

 

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২৩:৪৮:৪৫