সৌন্দর্য ধরে রাখতে কুকুরের মূত্র পান করেন এই মহিলা
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
পোষ্য কুকুরের মূত্র নিয়মিত পান করা কারণে চেহারায় ছড়াচ্ছে জেল্লা, বাড়ছে গ্ল্যামার, সেরে গিয়েছে মুখের সব ব্রণ। এমনই দাবি করেছেন আমেরিকার এক মহিলা। নিজের বক্তব্যের সপক্ষে তিনি পেশ করেছেন প্রমাণ। দেড় মিনিটের একটি ভিডিও ছড়িয়েছে ইন্টারনেটে। যেখানে দেখা যাচ্ছে ওই মহিলা নিজের পোষ্য কুকুরের মূত্র পান করছেন। যদিও ওই মহিলার নাম জানা যায়নি।

ওই ভিডিও-তে মহিলা বলছেন, “প্রথমবার আমার পোষা কুকুরের মূত্র পান করার আগে পর্যন্ত আমি খুব হতাশ ছিলাম আমার সৌন্দর্য নিয়ে। এখন আমার সব ব্রণ সেরে গিয়েছে।” নিজের পোষ্যের মূত্র যে কতটা স্বাস্থ্যকর তাও তিনি বুঝিয়েছেন ওই ভিডিও-তে। তিনি বলছেন, “কুকুরের মূত্রে ভিটামিন এ এবং ই রয়েছে। এছাড়াও কুকুরের মূত্রে ক্যালসিয়াম থাকে, যা ক্যানসারের মতো রোগ নিরাময়ে সাহায্য করে।”

নাম জা জানা ঐ মার্কিন মহিলা যেমনই দাবি করুন না কেন। চিকিৎসকেরা কিন্তু বলছেন অন্য কথা। প্রাণীর মূত্রে জল ছাড়াও থাকে অনেক ইউরিয়া, ক্রিয়েটিন, বিভিন্ন ইলেক্ট্রোলাইটস, ইউরিক অ্যাসিড, এনজাইম সহ আরও অনেককিছু। যেগুলি মানব শরীরের ক্ষেত্রে কখনই সুখকর নয়। মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

ওই মহিলা দাবি করেছেন যে কুকুরের মূত্র পান করলে নিরাময় হটে পারে ক্যন্সারের মতো মারণ রোগ। ক্যান্সারের প্রতিষেধকের উপকরণও থাকে কুকুরের মূত্রে। এই বিষয়টি নিশ্চিত করে কিছু বলা যায় না বলে জানিয়েছেন বিশিষ্ট চিকিৎসক ডাঃ অ্যামি শাহ।

প্রাচীন যুগে ওষুধ হিসেবে কুকুর বা মানুষের মূত্র পান করার প্রচলন ছিল। চিন, রোম, গ্রীস এবং ইজিপ্টে এই রেওয়াজ ছিল।

প্রাচীন যুগের রেওয়াজ অনুসারে ভারতে গরুর মূত্র নিয়ে অনেকে অনেক বক্তব্য পেশ করেছেন। সেখানেও গোমূত্রকে ওষুধ হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে। সেই নিয়ে বিতর্ক কিছু কম হয়নি। সেই সবকিছুর মাঝে এবার যুক্ত হল মার্কিন মহিলার কুকুরের মূত্র পান। ওষুধ হিসেবেই তিনি নিয়মিত কুকুরের মূত্র পান করছেন। পশুদের মূত্রের গুরুত্বের ইতিহাসে এটা যে একটা নতুন মাত্রা দিল তা বলাই বাহুল্য। সূত্র: কলকাতি২৪

২০ জুন, ২০১৮ ২২:৩৫:১৩