ঝগড়া মেটাতে স্বামী-স্ত্রীকে হোটেলে থাকার নির্দেশ!
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
শ্বশুরবাড়িতে নিয়মিত গঞ্জনা সহতে বলে বিচারককে জানান অহনা নামের এক গৃহবধূ। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যেও বনিবনা হচ্ছে না। তাই স্বামী-স্ত্রী দু'জনকে তিন দিন হোটেলে একই কক্ষে থাকার নির্দেশ দিলেন আদালত। গত জানুয়ারি মাসে স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ তুলে ভারতের সিউড়ি আদালতের দ্বারস্থ হন অহনা সাহা। পালটা অভিযোগ করে স্বামী গৌতম দাস। কিন্তু সিউড়ির জেলা ও দায়রা বিচারক পার্থসারথী সেন নজিরবিহীনভাবে অহনা ও গৌতমকে তিন দিন একটি হোটেলে কাটানোর নির্দেশ দেন। নিজের খরচেই দম্পতিকে হোটেলে পাঠান বিচারক। সেই হোটেলে ওই দম্পতির আত্মীয়দেরও প্রবেশ করতে নিষেধ করা হয়।

তিন দিন পরে বিচারকের সামনে পুরনো অভিমান ভুলে ফের শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার কথা জানান অহনা। গৌতম-অহনা দুজনে সিউড়ির ভট্টাচার্যপাড়ার বাড়িতে গিয়ে ওঠেন। কিন্তু শ্বশুরবাড়ি ফিরলেও গৌতম ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগ থানা থেকে প্রত্যাহার করেননি অহনা।

আদালতের নির্দেশে ১৯ জানুয়ারি শ্বশুরবাড়ি ফিরলেও ফের ১ ফেব্রুয়ারি বাবা-মায়ের সঙ্গে নদিয়া ফিরে যান অহনা। অহনা জানান, খাদ্যে বিষক্রিয়ার জেরে গত ৩০ জানুয়ারি অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। পরের দিন সিউড়ি হাসপাতালে ভর্তি হয়। তার পরেই বাবার বাড়ি ফিরে যান। অহনার অভিযোগ, তাকে মানসিক নির্যাতন করা হয়। যদিও চিঠির শেষে শাশুড়িকে ভালো মানুষ বলে উল্লেখ করেন তিনি। সূত্র : এবেলা।

 

 

 

২১ মার্চ, ২০১৮ ১১:২২:৩৯