কুখ্যাত অপরাধীর প্রেমে পড়ে চাকরি গেল মহিলা কনস্টেবলের
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
ঠিক এমন ঘটনা বলিউড কিমবা টলিউডের সিনেমার প্লট৷ এমন প্লটেই তৈরি হয়েছে বলিউডি ফিল্ম গুনাহ৷ রিল লাইফ থেকে বেরিয়ে এবার বাস্তব জীবনে ঘটল সেরকম ঘটনা৷ এক মহিলা পুলিশ কনস্টেবল প্রেমে পরলেন এক গ্যাংস্টারের৷ তবে মধূরেণ সমাপয়েত হলনা ঠিক মুভিতে যেমন হয়৷ ঘটনাটি বিহারের ভাগলপুর পুলিশ স্টেশনের৷ আর সেই ‘গুনাহ’ এর কারণেই চাকরি গেল মহিলা কনস্টেবলের৷ গত বছর প্রীতি কুমারির সিতামারী মহিলা পুলিশ স্টেশনে চাকরিতে নিযুক্তি হয়৷ সেখানেই তিনি প্রণয়ে জড়ান এলাকার কুখ্যাত অপরাধী মিঠু শাহের সঙ্গে৷ জেলার মোস্ট ওয়ান্টেড অপরাধীদের তালিকার উপরের দিকে নাম রয়েছে মিঠু শাহের৷

দি টেলিগ্রাফের দেওয়া তথ্য অনুসারে, এই প্রেমিক যুগল সকলের নজর এড়িয়ে চুপিচুপি দেখা করত সিতামারী পুলিশ লাইনে৷ এখানেই থাকতেন প্রীতি৷ জানা গেছে প্রীতি মিঠু শাহের জীবনধারণের পদ্ধতি দেখে তার প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পরেন৷ দুজনে একে অপরের প্রেমে এতটাই হাবডুবু খেতে শুরু করে যে শেষমেশ লুকিয়ে একটি মন্দিরে বিয়েও সেরে ফেলে দুজনে৷ এরপরই জানাজানি হয়ে যায় লুকোনো প্রেম৷ মহিলা কনস্টেবল প্রীতি কুমারীর জন্য বিষয়টি শুখকর ছিলনা৷ সিতামারী পুলিশ স্টেশনেরই সুপারিটেন্ডেন্ট অফ পুলিশ হরি প্রসাদের কানে যায় গোটা বিষয়টি৷ তিনি বিষয়টি অণুসন্ধান করতে নির্দেশ দেন৷

অনুসন্ধানে সত্যি উঠে আসে৷ প্রীতি দোষি প্রমানিত হয়৷ এরপর ওই মহিলা সনস্টেবলকে জবাবদিহি করতে বলা হয়৷ দি টেলিগ্রাফের তথ্য অনুসারে, সিতামারীর এসপি জানিয়েছেন “এক কুখ্যাত অপরাধীকে বিয়ে করে প্রীতি তার ডিপার্টমেন্টের নাম বদনাম করেছে৷”

প্রীতিকে ঘটনার জবাবদিহি চাওয়া হলে সে কোনও সঠিক উত্তর দিতে পারেনি যা পুলিশ ডিপার্টমেন্টকে আশ্বস্ত করতে পারে৷ কেন ওই মহিলা পুলিশ কনস্টেবল এমন অঘটন ঘটালেন তার সঠিক জবাব দিতে না পারায় তাঁকে ডিপার্টমেন্ট তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়৷ সূত্র: কলকাতা ২৪

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

২৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০৩:২৬