পরিণতিহীন পরকীয়ায় বিব্রত
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট


বিয়েব বয়স এক মাস মাত্র। এর মধ্যেই নতুন বউকে ছেড়ে সারাদিন ফোনেই কথা বলে যেত স্বামী। সন্দেহ দানা বাঁধে নববধূর মনে। কার সঙ্গে এত কথা তাঁর স্বামীর? শেষমেশ প্রশ্নটা একদিন করেই বসলেন স্বামীকে। কিন্তু উত্তরে ঠিক মন ভরল না নতুন বউয়ের। স্বামীর অজান্তেই ফোনের কললিস্ট চেক করে ফেললেন তিনি। দেখা গেল একটি নম্বরে বার বার ফোন করেছে তাঁর স্বামী। খোঁজ নিতেই ফাঁস হলো বিস্ফোরক তথ্য।

বিয়ের আগে থেকেই এক নারীর সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে ভারতের ঝাড়খণ্ডের ওই যুবকের। আর সেই নারী আর কেউ নয়, যুবকেরই বোন-জামাইয়ের বোন। অর্থাৎ তাঁদেরই নিকট-আত্মীয়। জানা যায়, বিয়ের বহু আগে থেকেই চলছে এই প্রণয়ের সম্পর্ক। আর এর জন্য ঝাড়খণ্ডের কুমারধুবি থেকে ঝরিয়ায় প্রায়দিনই যাতায়ত করত ওই যুবক। কিন্তু এক মাস আগে তাঁর বিয়ে হয়ে যায়। তারপরও এই সম্পর্ক বজায় রেখে চলেছিল দুজন।

গত সোমবার বিষয়টি নিয়ে একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছতে ঝরিয়া গিয়ে উপস্থিত হয় যুবকের বাড়ির লোকজন। খবর পেয়ে যুবকও গিয়ে হাজির হয় প্রেমিকার বাড়িতে। কথা বলার অজুহাতে স্থানীয় এক মন্দিরে সকলকে নিয়ে যায় সে। সেখানে আচমকাই নিজের পকেট থেকে সিঁদুর বের করে প্রেমিকার মাথায় পরিয়ে দেয়।

ওদিকে, নববধূর পরিবারের লোকজন প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই ঝরিয়া থানায় অভিযোগ জানান। পুলিশ এসে দুই পক্ষকে বুঝিয়ে-সুঝিয়ে বিষয়টির মীমাংসা করে দেয়।  পুলিশের উপস্থিতিতেই যুবতীর মাথা থেকে মুছে ফেলা হয় সিঁদুর। যুবককে আর এই সম্পর্ক এগিয়ে না নিয়ে যাওয়ার কড়া পরামর্শ দেওয়া হয়। জানা গিয়েছে, প্রথমে আপত্তি জানালেও পরে এই পরামর্শ মেনে নেয় সে। সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন

 


০৭ জুন, ২০১৭ ১৬:০১:২৫