স্বাগত ২০১৭
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
নানা আয়োজনে নতুন বছর ২০১৭ সালকে আজ বরণ করছে জাতি। বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে নববর্ষের প্রথম দিনটি উদযাপিত হচ্ছে। ব্যক্তি, পরিবার, সমাজ, দেশ তথা সমগ্র বিশ্বের সুখ ও উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করা হবে এই দিনটিতে। এই বিশেষ দিনটিকে উপলক্ষ করে এরই মধ্যে বিভিন্ন খুদেবার্তা ও সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করে শুভেচ্ছা বিনিময় শুরু হয়েছে। বিভিন্ন করপোরেট, সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা ও সংগঠনও প্রতিবছর নিকটজনদের কাছে শুভেচ্ছাবার্তা পাঠানো হয়ে থাকে।

এই দিনটিতে বিদায়ী বছরের সাফল্য ও ব্যর্থতা ফিরে দেখা হয় এবং নতুন বছরে কীভাবে লক্ষ্য অর্জন করা যায়, সে জন্য পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়। বছরের অসমাপ্ত কাজগুলো সম্পন্ন করার জন্যও কর্মপরিকল্পনা নেওয়া হয়। ২০১৬ সাল বাংলাদেশের জন্য ছিল অর্থনীতি, কৃষি ও পর্যটন এবং মধ্যম আয়ের দেশে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে তথ্যপ্রযুক্তির সাফল্য ছিল উল্লেখযোগ্য। রাজনীতির ক্ষেত্রেও একধরনের স্থিতিশীলতা ছিল। আগের বছরগুলোর মতো এ বছরটিতে হরতাল ছিল না।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) তথ্যে দেখা যায়, বিদায়ী বছরে রেকর্ড পরিমাণ জিডিপি ৭ দশমিক ১১ ও মাথাপিছু গড় আয় সর্বোচ্চ রেকর্ড এক হাজার ৪৬৫ ডলারে উন্নীত হয়েছে। ২০১৬ সালে কৃষিক্ষেত্রেও ব্যাপক সাফল্য দেখা গেছে। এ সময় কৃষকরা খাদ্যশস্যে শুধু অভ্যন্তরীণ চাহিদাই মেটায়নি, বিদেশে তা রপ্তানিও হয়েছে।

সময়ের পথপরিক্রমায় এগিয়ে যেতে যেতে পেছন ফিরে চকিত দেখে নিতে ইচ্ছ করে চলে যাওয়া মুহূর্তনিচয়। বিদায়ী এ বছরে চিরবিদায় নিয়েছেন দেশের অনেক কৃতী সন্তান। হারিয়েছে অনেক কিছুই। দিয়েছেও কি কম?

রাজনীতির ক্ষেত্রে বিগত বছর আলোচিত ছিল স্থানীয় সরকারের নানা পর্যায়ের নির্বাচন। দলীয় প্রতীকে উপজেলা, পৌরসভা এবং ইউনিয়ন পর্যায়ের নির্বাচন ছাড়াও অনুষ্ঠিত হয়েছে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন। শেষ দিকে এসে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে আগামী নির্বাচন নিয়ে সংলাপে বসেছে রাজনৈতিক দলগুলো। গণতান্ত্রিক চর্চার ক্ষেত্রে তা আশা জাগাচ্ছে মানুষকে।

বিগত বছরটি যেমন জঙ্গি উত্থানের, তেমনি পতনেরও। গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারি এবং শোলাকিয়ায় ঈদ জামাতে জঙ্গি হামলা পুরো বাংলাদেশকেই হতবিহ্বল করেছিল। পরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কঠোর অবস্থান, নিয়মিত অপারেশনে দমন হয় জঙ্গিবাদ, উচ্ছেদ হয় অনেক আস্তানা।

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও ফাঁসি কার্যকরের ধারাবাহিকতা বজায় ছিল ২০১৬ সালেও। এ বছর ফাঁসি কার্যকর হয় আলবদর নেতা ও জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামী এবং আলবদর কমান্ডার মীর কাসেম আলীর।

অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধি যেমন বেড়েছে, তেমনি দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে পদ্মা সেতুর নির্মাণযজ্ঞ। নেতিবাচক ঘটনাও ছিল অনেক। বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে অর্থ চুরির ঘটনায় ছিল তীব্র সমালোচনা। এ ছাড়া নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্র্রব্যের মূল্যবৃদ্ধিতে সংকটে পড়েছে অনেকে।

আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি যেমন ছিল, তেমনই ছিল নানা সময়ে সাম্প্রদায়িক হামলা। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে হিন্দুপল্লীতে হামলা, গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে সাঁওতালপল্লীতে আগুন অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের কপালে এঁকে দিয়েছে কলঙ্কতিলক। সাম্প্রদায়িক এসব হামলা যেমন দেশের জন্য কলঙ্কজনক, তেমনি আমাদের মঙ্গল শোভাযাত্রার বিশ্বস্বীকৃতি গৌরবের বিষয়।

নতুন বছরটিতে সব সমস্যা মোকাবিলা করেই এগিয়ে যেতে চায় বাংলাদেশ, এগিয়ে যেতে চায় দেশবাসী। কেননা নতুন চিরকালই সম্ভাবনাময়। এ জন্য নতুনের প্রতি মানুষের আগ্রহও বিপুল। পুরনো বছরের ব্যর্থতা ঝেড়ে ফেলে, ব্যক্তি, সমাজ ও রাষ্ট্রীয় জীবনে শুরু হয় নতুন কর্মপরিকল্পনা। শুভ ও কল্যাণকর সেই পরিকল্পনাগুলো সফল হোক—নতুন বছরের শুরুতে এ কামনা সবার জন্য।

০১ জানুয়ারি, ২০১৭ ০৭:১০:৫০