রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা: কী করবেন মীর কাসেম আলী
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
মীর কাসেম আলী
মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীকে তার রিভিউ আবেদন খারিজ করে দেয়া সর্বোচ্চ আদালতের রায় পড়ে শোনানো হয়েছে। কাশিমপুর কারাগারের কারা তত্ত্বাবধায়ক প্রশান্ত কুমার বণিক বিবিসিকে জানান সকাল সাড়ে সাতটায় আদালতের রায় পড়ে শোনানো হয়েছে।

অপর একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন রায় পড়ে শোনানোর পর তিনি প্রাণভিক্ষা করে রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন করবেন কি-না জানতে চাওয়া হয়। জবাবে তিনি বলেন, “আমাকে একটু সময় দেন। ভেবে-চিন্তে বলি। পরিবারের সদস্যদের সাথে আলোচনা করে জানাবো”।

তবে বেলা সাড়ে এগারটা নাগাদ পরিবারের সদস্যদের কেউ তার সাথে সাক্ষাতের জন্য কারা কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করেননি বলেন জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ তার মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখে রিভিউ আবেদন খারিজ করে দেয়।

ফলে তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করতে কোন আইনগত বাধা নেই।

বিচার কার্যক্রমের বিভিন্ন পর্যায় শেষে চলতি বছরের মার্চ মাসে মীর কাসেম আলীর মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। সেই রায়ের বিরুদ্ধে একটি রিভিউ আবেদন করেন মি. আলীর আইনজীবীরা।

গত রবিবার সেই আবেদনের শুনানি শেষ হয় এবং মঙ্গলবার সকালে তার রায় ঘোষণা করা হয়।

মীর কাসেম আলী কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২-এর কনডেম সেলে বন্দী রয়েছেন।

রিভিউ খারিজের পর মীর কাসেম আলীর সামনে শুধুমাত্র রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

ওদিকে মিস্টার আলীকে ‘হত্যার সরকারি ষড়যন্ত্রের নিন্দা ও প্রতিবাদে’ জামায়াতে ইসলামীর আজ হরতাল পালন করছে দলটি।

তবে রাজধানী ঢাকাতে হরতালের কোন প্রভাব দেখা যায়নি। সড়কগুলোতে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

খোলা রয়েছে দোকান পাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সহ অফিস আদালত। তবে কিছু স্কুল ক্লাশ বন্ধ রাখা হয়েছে।

 

৩১ আগস্ট, ২০১৬ ২৩:০৬:৫১