দেশে বর্তমানে ২৮ শতাধিক পত্রিকা প্রকাশিত হচ্ছে : ইনু
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট


তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘দৈনিক, সাপ্তাহিক, পাক্ষিক, মাসিক, ত্রৈ-মাসিক, ষান্মাষিক মিলে বর্তমানে দেশে ২৮ শতাধিক পত্রিকা প্রকাশিত হচ্ছে। সরকারের গণমাধ্যম বান্ধব বিভিন্ন পদক্ষেপের কারণে বর্তমানে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার ব্যাপক প্রসার ঘটেছে। বর্তমানে উভয় গণমাধ্যম মুখর খাত হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে।’ ১১ জুন রোববার জাতীয় সংসদে সরকারি দলের সদস্য বেগম ফজিলাতুন নেসা বাপ্পি’র এক প্রশ্নের জবাবে এ সব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের গত ৭ বছরে ৭ শতাধিক পত্রিকার নিবন্ধন দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে সরকারি ৩টি টেলিভিশন চ্যানেলের পাশাপাশি বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ২৬টি টেলিভিশন চ্যানেল, ২১টি এফ. এম বেতার এবং ১৭টি কমিউনিটি রেডিও সম্প্রচার কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

মন্ত্রী বলেন, সংবাদপত্রে কর্মরত সাংবাদিকদের পেশাগত দক্ষতা ও উৎকর্ষ বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট বর্তমান সরকারের গত ৭ বছরের অধিক সময়ে ১৬ হাজার ১ জন সাংবাদিককে প্রশিক্ষণ প্রদান করেছে। ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিকদের পেশাগত দক্ষতা ও উৎকর্ষ বৃদ্ধির লক্ষ্যে জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউট একই সময়ে ২ হাজার ২৫৫ জন সাংবাদিককে প্রশিক্ষণ প্রদান করেছে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ইলেকট্রনিক মিডিয়ার জন্য একটি দায়বদ্ধ ‘সম্প্রচার কমিশন’ গঠনের লক্ষ্যে প্রস্তাবিত ‘সম্প্রচার আইন, ২০১৬’ এর খসড়ার চূড়ান্ত পরিমার্জন কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

সরকারি দলের সদস্য মো. ইসরাফিল আলমের এক প্রশ্নের জবাবে হাসানুল হক ইনু বলেন, সাংবাদিকদের কল্যাণে গঠিত সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের নিজস্ব তহবিলে সরকার ৫ কোটি টাকার ‘সীডমানি’ প্রদান করেছে। সরকার সাংবাদিকদের বৃহত্তর কল্যাণে ‘বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট আইন, ২০১৪’ প্রণয়ন করেছে। এই ট্রাস্টের আওতায় ইতোমধ্যে একটি ‘ট্রাস্টি বোর্ড’ গঠন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট ভবনে ট্রাস্টের অস্থায়ী কার্যালয় স্থাপনসহ ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিয়োগ করা হয়েছে। ট্রাস্টের কার্যক্রমকে আরও গতিশীল ও স্বচ্ছ করার লক্ষ্যে ইতোমধ্যে ‘সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট বিধিমালা ২০১৬’ প্রণয়ন করা হয়েছে। গণমাধ্যম বান্ধব সরকার সাংবাদিকদের কল্যাণে সব সময় সহযোগিতার হাত প্রসারিত করেছে।

মন্ত্রী বলেন, সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের আওতায় প্রথমবারের মতো ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ১৯৬ জন দুস্থ, অস্বচ্ছল, দুর্ঘটনায় আহত ও মৃত সাংবাদিকদের পরিবারের সদস্যদের মাঝে ১ কোটি ৪০ লাখ টাকার অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কল্যাণ তহবিল থেকে দুস্থ ও অসুস্থ সাংবাদিকদের অনুকূলে আর্থিক অনুদান প্রদানের পাশাপাশি সরকার সাংবাদিকদের কল্যাণে ‘সাংবাদিক সহায়তা ভাতা বা অনুদান নীতিমালা-২০১২’ এর আওতায় ২০১১-১২ অর্থবছরে ৬১ জন, ২০১২-১৩ অর্থবছরে ১৮৫ জন, ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ১৯৬ জন, ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ১৮১ জন দুস্থ, অস্বচ্ছল, দুর্ঘটনায় আহত ও নিহত সাংবাদিকদের পরিবারের সদস্যদের মাঝে যথাক্রমে ৫০ লাখ, ১ কোটি, ১ কোটি ১০ লাখ, ১ কোটি ২০ লাখ টাকার আর্থিক অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়েছে।



 


১১ জুন, ২০১৭ ২০:১৬:০৬