আড়াইশ’র বেশি কর্মী ছাঁটাই করছে গার্ডিয়ান ‍
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
অনলাইনের ধাক্কায় টালমাটাল হয়ে যুক্তরাজ্যের অন্যতম জনপ্রিয় জাতীয় দৈনিক দ্য গার্ডিয়ান ২০ শতাংশ ব্যয় কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আর এরই অংশ হিসেবে এবার ২৫০ ‍এরও বেশি কর্মী ছাঁটাইয়ের ঘোষণা দিয়েছে ঐহিত্যবাহী এই পত্রিকাটি। তবে এ সিদ্ধান্তের বাইরে রয়েছেন বার্তাকক্ষে নিয়োজিত ১০০ কর্মী। সোমবার (২০ জুন) স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বিষয়টি জানানো হয়েছে।

দৈনিকটির ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ বলছে, ২৫৭ জন কর্মী স্বেচ্ছায় পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন, যা গৃহীতও হয়েছে। এ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিলো গত মার্চে।

দ্য গার্ডিয়ানের সম্পাদক ক্যাথারিন ভিনার ও গার্ডিয়ান মিডিয়া গ্রুপের প্রধান নির্বাহী ডেভিড পামসেল প্রতিষ্ঠানটির লন্ডন স্টেশন থেকে প্রায় ১০০ কর্মী ছাঁটাইয়ের সিদ্ধান্ত নেন।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে চলতি সপ্তাহে সম্পাদনা বিভাগের ৯২ জনকে ই-মেল করে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করতে বলা হয়। কিন্তু এর মধ্যে ওই ই-মেলের প্রেক্ষিতে ৬৯ জন পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন।

কার্যত প্রযুক্তির উৎকর্ষের এ যুগে সংবাদপত্রের জগতে প্রিন্টিং ভার্সনে বিজ্ঞাপনের একটা চরম ধাক্কা খেতে হয়েছে কাগজে পত্রিকাগুলোকে। বিভিন্ন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানও অনলাইনের দিকেই বিজ্ঞাপন দিতে ঝুঁকছেন। তাই বিজ্ঞাপন ক্ষরায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে গার্ডিয়ান।

অনলাইন সংবাদ মাধ্যমের দিকে ইঙ্গিত করে গার্ডিয়ানের মানবসম্পদ বিভাগের পরিচালক সুজি ব্ল্যাক বলেন, ‘বাজার… অবিশ্বাস্যভাবে অস্থিতিশীল হয়ে পড়েছে। তাই যাচাই-বাছাই করে আমাদের খরচের ভিত্তি ঠিক করা হবে। আরও কীভাবে প্রতিষ্ঠানটিকে লাভজনক করা যায় সে বিষয়েও ভাবা হবে।’

গত বছর পত্রিকাটিকে প্রায় ৬০ মিলিয়ন পাউন্ডের (১ পাউন্ডে ১১৫ টাকা) অর্থনৈতিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়েছে গার্ডিয়ানকে।

এর আগে অনলাইনের জয়জয়কারে গত মার্চে ৫০০ এর বেশি কর্মী ছাঁটাই করে কাতার ভিত্তিক আন্তজর্অতিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

প্রিন্টিংয়ে বিজ্ঞাপন খরায় থেকে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে পত্রিকা ছাপানো বন্ধ করে দেয় যুক্তরাষ্ট্রের ‍১২০ বছরের পুরানো পত্রিকা ‘দ্য ইনডিপেনডেন্ট’।

তারও আগে বন্ধ হয়ে যায় বিশ্বব্যাপী সুনাম কুড়োনো নিউজউইক। বর্তমানে পত্রিকা দু’টির কেবল অনলাইন ভার্সন চালু আছে।

২১ জুন, ২০১৬ ০৩:২৯:৫২