শরণার্থীকে লাথি মেরে চাকরি হারালেন নারী সাংবাদিক
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
শিশুসহ দুই শরণার্থীকে লাথি মেরে চাকরি হারালেন হাঙ্গেরিয়ার এক নারী সাংবাদিক।স্থানীয় সময়  মঙ্গলবার  রোসজকি গ্রামে নিবন্ধনের জন্য হুড়োহুড়িরত শরণার্থীদের লাথি মারেন তিনি। বার্তা সংস্থা এএফপিতে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, সার্বিয়া সীমান্ত সংলগ্ন রোসজকি গ্রামে শরণার্থীদের নিবন্ধন শিবিরের কাছে মঙ্গলবার খবর সংগ্রহ করতে যান সাংবাদিকরা। এর মধ্যে হাঙ্গেরির এন১টিভি’র ক্যামেরাপারসন পেত্রা লাসজলো ছিলেন।পুলিশের নির্ধারিত লাইনে এক পর্যায়ে শরণার্থীরা হুড়োহুড়ি শুরু করে। এ সময় এক শিশুকে কোলে নিয়ে দৌড়ানোরত এক ব্যক্তিকে ল্যাং মেরে ফেলে দেন পেত্রা। কিছুক্ষণ পর দৌড়ানোরত অপর এক শিশুকে লাথি মারেন তিনি।

ঘটনাটি উপস্থিত অন্যান্য টেলিভিশন সাংবাদিকদের ক্যামেরায় স্পষ্টরূপে ধরা পড়ে। এ ঘটনা ছড়িয়ে পড়ার পর পরই এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হয়। সমালোচনার পরিপ্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিকভাবে পেত্রাকে চাকরিচ্যুত করে টেলিভিশন কর্তৃপক্ষ।

এন১ টিভি’র প্রধান সম্পাদক জাবোলকস কিসবার্ক বলেছেন, আমাদের এক সহকর্মী রোসজকি’র ত্রাণ সংগ্রহ পয়েন্টে অগ্রহণযোগ্য ব্যবহার করেছেন। এ জন্য তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

 

০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ ১৫:০৩:৪৪