ব্যর্থ প্রেম
মৌসান
অ+ অ-প্রিন্ট
সেদিন তুমি নদীর পাশটিতে এসে বসেছিলে। তিরতির করে বয়ে চলেছে ছোট নদী। দূরে ধূসর পাহাড় নীল আকাশের সামিয়ানার সঙ্গে সখ্যতা করেছে। সেদিক থেকেই বয়ে আসছিল ঠাণ্ডা পূবালী বাতাস। ছড়িয়ে যাচ্ছিল কচিকলাপাতা রঙের ঘাসের গালিচায়। যেখানে রঙবেরঙের ফুলের সমাহার। নতুন হাওয়ার ফুলগুলির পাপড়িদল আনন্দে নেচে নেচে উঠছিল আর প্রজাপতি, ভ্রমর রাশি রাশি ফুলের মধু খাবে বলে ইতিউতি উঁকিঝুকি মারছিল। এ ডালে সে ডালে বসছিল আবার উড়েও পালাচ্ছিল। প্রকৃতিগতভাবে ওরা তো এমনটাই। মৌতাতে মজে থাকে ওদের মন। মৌ পান হয়ে গেলে চলে যায় ইচ্ছেডানায় ভর করে। তাতে ঘাসফুলেদের কোন ভ্রুক্ষেপ নেই। কিছুটা সময় তো ভাল কেটেছে। তাছাড়া তারা তো ঘর বাঁধবার প্রতিজ্ঞা করেনি যে বাঁধা পড়বে।

দেখে...,তোমার মনটা জুড়িয়ে যাচ্ছিল। একটু আগেই বৃষ্টি হয়ে গেছে এক পশলা। তুমি ভিজেছো। তোমার প্রিয় হলুদ রঙের ঘাসফুলের সঙ্গে এই প্রথমবার রিমঝিম সংগীত শুনেছো। তুমি একদৃষ্টে তাকিয়েছিলে, অপরূপ মুগ্ধতা ছিল তোমার চোখেমুখে ও ভঙ্গিমায়। ঘাসফুলও দূর থেকে তোমায় দেখছিল। তারও যে ভাল লাগে নি তা নয়। তবে সে তো জানে যে সে পুজোর উপকরণ কোনদিনও হতে পারবে না। তাই আশাভঙ্গের ইতিহাসে নিজের নাম লেখাতে চায় নি।

তুমি বুঝি অন্যকিছু চেয়েছিলে! এগিয়ে গেলে ফুলের দিকে। নতজানু হয়ে বসলে তার সামনে। সে কি খানিক লজ্জা পেয়েছিল? তাই তুমি মিষ্টি হেসেছিলে? হবে হয়তো। তোমার মিষ্টি হাসিতে তার মন প্রাণ বিগলিত হয়েছিল। আর অপেক্ষা করতে রাজী নও তুমি। উপড়ে নিলে ঘাস পাতাসহ ফুলের নরম ডালটিকে। দু’হাতে তুলে নিয়ে অনেকক্ষন ধরে দেখলে তাকে। তোমার মনে তখন কি চলছিল জানি না, তবুও সে ফুলের তোমাকে বেশ পছন্দ হয়েছিল। তাই সে খিলখিলিয়ে হেসে উঠেছিল। 

হঠাৎ কি মনে হল, তুমি সে হলুদ ফুলের গন্ধ শুঁকতে গেলে। যা! কোন গন্ধই তো নেই! শুধুই রূপের ছটা। তুমি তো তাকে ফুলদানিতে সাজিয়ে রাখতে চাও নি। নিজের করে রাখতে চেয়েছিলে। কিন্তু কোন সুগন্ধ না পেয়ে যারপরনাই হতাশ হলে। ছুঁড়ে ফেলে দিলে অনায়াসে। বুঝলেও না যে এ ফুল যে জংলী ফুল। এর কোন শহুরে, মেকি সুগন্ধ থাকতে পারে না। এর বুনো গন্ধতেই এর সমস্ত ভালবাসা মাখামাখি হয়ে আছে। মেকি, শহুরে সভ্যতায় বড়ো হয়ে ওঠা তোমার পুরুষত্বের অহম সে সুগন্ধ গায়ে মেখে নিতে পারলে না।

তবুও সে ফুল তোমার অপেক্ষাতেই ছিল। সে যে তোমার স্পর্শ পেয়েছে, ধন্য করেছে নিজেকে। তাই তুমি যখন তাকে অবহেলায় পায়ে দলে, মাড়িয়ে চলে গেলে, তখনো সে শুধু তোমার প্রতীক্ষায় দিন গুনছিল। হৃদয়টা তার রক্তাক্ত হচ্ছিল, ক্ষতবিক্ষত হচ্ছিল, তবুও সে তার প্রেমকে ফুরিয়ে যেতে দেয় নি। শুকিয়ে যাবার আগের মুহূর্ত পর্যন্ত্য শুধুমাত্র তোমারই অপেক্ষায় ছিল।

তুমি ভাবলে, এমন ফুল তো কত আসে যায়। চাইলেই তুমি পেতে পারো হাতের মুঠোয়। তোমার সঙ্গে তার সহবাস হতেই পারে না। সে কি আর তোমার যোগ্য? তবুও সে প্রতিপলে তোমার জন্যে তিলতিল করে মরছে দেখে তুমি আনন্দ অনুভব করতে থাকলে। না। সে এক ধরনের সুখানুভূতি। নিজের অক্ষমতা ঢেকে গর্বান্বিত হবার প্রচেষ্টা মাত্র। তুমি ভাবছো এ তোমার বিশাল জয়, তাই না? তোমার মুখে সেই অহংকারের হাসি বারবার ফুটে উঠছে। দেখেছে সে ফুল। ঝাপসা চোখে দেখেছে, বারবার।

ভুল সবটা ভুল। জানো কি? ঐ দেখ সবুজ ঘাসের ডগায় ফুটে থাকা ফুলেরা সমস্বরে তোমাকে কি যেন বলতে চাইছে। কান পেতে শোন। ওরা বলছে,

“ বাবুমোশাই...এ জয় নয়...এ তোমার পরাজয়। তুমি হারিয়েছো হলুদ ফুলের প্রেম... স্বচ্ছ, নির্মল ভালবাসা। চিনতেই পারো নি তার সারল্যকে। বাহ্যিক সৌন্দর্য্যে গা ভাসিয়েছো...। 

যাও...খুঁজে নাও নতুন আর এক ফুল; শহুরে পাত্রে সারপ্রয়োগে আকর্ষনীয় হয়ে বেড়ে ওঠা সে এক অন্য ফুল। তার চাকচিক্য তোমায় মাতোয়ারা করে রাখুক দিন রাত। আশা করি তোমার জয়যাত্রা শুভ হবে। তবে আজকের মত... এখনকার মত...তুমি...শুধুই একজন ব্যর্থ প্রেমিক...”

 

০৩ মে, ২০১৯ ১৪:২০:৪৬