ইসলামে ধূমপান ও পান খাওয়া অনুমোদিত কিনা?
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
ড. জাকির নায়েক
পিসটিভিতে প্রশ্নউত্তর পর্বে ড. জাকির নায়েক এক দর্শকের এমন প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন। ড. জাকির নায়েক বলেন, পূর্ববর্তী আলেমরা সে সময়ের আলোকে বলেছিলেন, এটা মাকরুহ। তবে বর্তমানে বিজ্ঞানের উন্নতির সাথে সাথে বিশেষজ্ঞদের মতামতটাও পরিবর্তিত হয়েছে। কেননা কুরআনে সুরা বাকারার ১৯৫ নং আয়াতে উল্লেখ করা হয়েছে, তোমরা তোমাদের নিজেদের হাতে নিজেদের ধ্বংসের মুখে নিক্ষেপ করো না।
বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার মতে, প্রতিবছর ১০ লাখের বেশি মানুষ মারা যায় ধূম পানের কারণে। যারা ফুসফুসের ক্যান্সারে মারা যায়, তাদের মধ্যে ৯০ শতাংশ হল ধূমপান করার কারণে। যারা হৃদরোগের কারণে যারা মারা যায় তার ২০ শতাংশের কারণ হয়ে থাকে ধূমপান। এ ধূমপান ধীরে ধীরে বিষক্রিয়া সৃষ্টি করে। সিগারেটের মধ্যে থাকে ক্ষতিকর নিকোটিন।
সিগারেট শুধু ধূমপায়ীদের ক্ষতি করে না বরং তার আশেপাশের লোকজনদেরও ক্ষতি করে। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে চেইন স্মোকারদের স্ত্রীদের ফুসফুসে ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। কারণ একটিভ স্মোকিং তো ক্ষতিকর বটেই প্যাসিভ স্মোকিং আরও বেশি ক্ষতিকর। প্যাসিভ স্মোকিং-এ ধূমপায়ীর ধোঁয়াটা আরেকজন এর ফুসফুসে প্রবেশ করে।
ধূমপান করলে ধূমপায়ীর ঠোঁট, দাতের মাড়ি, আঙ্গুল কালো হয়ে যায়। গলায় ঘা, পেপটিক আলসারসহ কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা দেয়। এছাড়াও ধূমপানে যৌনশক্তি কমে যাওয়া, ক্ষুধা কমে যাওয়াসহ স্বাস্থ্য খারাপ হয়ে যায়। এমনকি স্মৃতি-শক্তিও কমতে থাকে ধূমপানের কারণে।
এসব গবেষণার ওপর ভিত্তি করে বর্তমানে আলেমরা ফতোয়া দিয়েছেন, ধূমপান হারাম। তাই ইসলামে এটার অনুমতি নেই।
পান খাওয়ার ব্যাপারে কথা হল, পানে যদি তামাক মেশানো হয় তবে তা হারাম হবে। আর তামাক না থাকলে খাওয়ার অনুমতি রয়েছে। অর্থাৎ ইসলামে যেকোনভাবে তামাক নেয়াটাই নিষিদ্ধ।
২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ ২০:৫০:২৮