অধিকাংশ মানুষই কি জাহান্নামে যাবে!
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
ড. জাকির নায়েক
পিসটিভির ‘ডিয়ার টু আসক’ আলোচনায় ড. জাকির নায়েককে প্রশ্ন করা হয়, পৃথিবীতে খারাপ মানুষের সংখ্যাই বেশি। অধিকাংশ মানুষ মূর্তিপূজা ও শিরিক করে। তাহলে এরা কি জাহান্নামে যাবে? এটা কি করে সম্ভব? উত্তরে ড. জাকির নায়েক বলেন, পৃথিবীটা পরীক্ষা কেন্দ্র। মানুষকে আল্লাহ তায়ালা পরীক্ষা করার জন্য পৃথিবীতে পাঠিয়েছেন। মানুষকে গাইড লাইন দিয়েছেন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার জন্য। সে গাইড লাইন অনুযায়ী চলাফেরা করলেই মানুষ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবে। আর গাইড লাইন মেনে না চললে উত্তীর্ণ হবে না।

যেমন মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষা খুবই কঠিন এক পরীক্ষা। এসএসসিতে উত্তীর্ন অধিকাংশ শিক্ষার্থীই মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে থাকে। কিন্তু খুব কম সংখ্যক শিক্ষার্থীই চান্স পেয়ে থাকে। পরীক্ষার্থীদের মধ্যে যারা ভালভাবে পড়াশোনা করেছে তারাই চান্স পেয়েছে। আর যারা করেনি তারা পায়নি। এ তো হল মেডিকেলের পরীক্ষা।

আর পৃথিবীর পরীক্ষা তো আরও কঠিন। এ পরীক্ষায় যারা উত্তীর্ণ হবে তারাই জান্নাতে যাবে। যারা আল্লাহর গাইডলাইন মেনে চলবে তারাই এ পরীক্ষায় সফল হবে। তবে দুর্ভাগ্য অধিকাংশ মানুষই তা মেনে চলে না। মেনে না চলার ফলাফল তাদের ভোগ করতে হবে। আর যারা মেনে চলে তাদের শুকরিয়া আদায় করা উচিত।

হযরত ওমর রা. একটি হাদিসে রয়েছে, তিনি বলেছেন, যদি তুমি জানতে পার শুধুমাত্র একজন মানুষ জান্নাতে যাবে তাহলে সে মানুষটা যেন তুমিই হও এ জন্য দোয়া কর। এটা বলা যাবে না যে, আমি তো ভাল কাজ করি না আমি হয় তো জান্নাতে যাবো না।

আর যদি তুমি জানতে পার যে শুধুমাত্র একজন মানুষ জাহান্নামে যাবে তাহলে তুমি আল্লাহর কাছে আশ্রয় প্রার্থণা কর যে, সে মানুষটা যেন তুমি না হও। তুমি এ কথা বলতে পারবে না, তুমি তো ভাল কাজ কর সে মানুষটা তুমি নও অন্য কেউ।

এ হাদিস দ্বারা বোঝা যায়, আমাদের উচিত আল্লাহর গাইড লাইন মেনে চলা। এবং এ পথে চলতে পারার জন্য শুকরিয়া আদায় করা। (ইউটিউিব থেকে)

১৩ আগস্ট, ২০১৫ ১৭:২৭:৫৪