'যে হাত হিন্দু মেয়েকে স্পর্শ করবে তা রাখার প্রয়োজন নেই'
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনন্ত কুমার হেগড়ে


সমাজে যদি কোনো হাত হিন্দু মেয়েকে স্পর্শ করে তাহলে তা আর রাখার প্রয়োজন নেই বলে হুঁশিয়ার করেছেন ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনন্ত কুমার হেগড়ে। গতকাল রোববার কর্ণাটকের কোডাগু জেলায় এক অনুষ্ঠানে তিনি এ বিস্ফোরক মন্তব্য করেন। ওই অনুষ্ঠানে হেগড়ে বলেন, ‘সমাজে কোন বিষয়টি আগে প্রয়োজন তা ভেবে দেখা দরকার। কোনো জাত বিচার করার প্রয়োজন নেই। যদি কোনো হাত হিন্দু মেয়েকে ছোঁয় তাহলে তা আর রাখার প্রয়োজন নেই।'

এই প্রথম এই ধরনের উসকানিমূলক মন্তব্য করলেন না হেগড়ে। এর আগে তাজমহল থেকে সবরীমালা, ধর্ম নিরপেক্ষতা থেকে হিন্দুদের অস্তিত্বসহ নানা বিষয় নিয়ে একাধিকবার বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন অনন্ত কুমার হেগড়ে।

গত ২ জানুয়ারি কেন্দ্রীয় এই মন্ত্রী মন্তব্য করেন, ‌কেরল সরকার যেভাবে সবরীমালা বিষয়টি নিয়ে হস্তক্ষেপ করেছে তা একপ্রকার প্রকাশ্য ‘দিবালোকে হিন্দুদের ধর্ষণ।’

রোববার ওই জনসভায় কয়েক হাজার মানুষের সামনে হেগড়ে বলেন, “তাজমহল মুসলিমরা তৈরি করেনি। ইতিহাস যা বলে তা একেবারেই সত্যি নয়। সম্রাট শাহজাহান তার আত্মজীবনীতে লিখেছেন তিনি ওই প্রাসাদ কিনেছিলেন রাজা জয় সিংহের কাছ থেকে। এটি ছিল একটি শিব মন্দির যা তৈরি করেছিলেন রাজা পরমাতীর্থ। তখন এটির নাম ছিল তেজো মহালয়া।  হিন্দুরা যদি ঘুমিয়ে থাকে তাহলে একদিন আমাদের সব বাড়িকেই ‘মঞ্জিল’ বলা শুরু হবে। ভবিষ্যতে রামকেও হয়তো ‘জাঁহাপনা’ হলে ডাকা হবে।”

গত বছর কর্ণাটকে দলিত বিক্ষোভ নিয়ে আপত্তিজনক মন্তব্য করেছিলেন হেগড়ে। বেল্লারিতে এক মেলায় তিনি ওই বিক্ষোভকে রাস্তার কুকুরের চিত্কার বলে মন্তব্য করেন। এর কিছুদিন পরই বিরোধীদের গরু, বাঁদরের সঙ্গে তুলনা করেন এই মন্ত্রী।

পাশাপাশি গত বছর হেগড়ে মন্তব্য করেন, ‘বিজেপি ক্ষমতায় এসেছে এদেশের সংবিধান থেকে ধর্মনিরপেক্ষ শব্দটা মুছে ফেলার জন্য।’ এবার ফের বিতর্কিত মন্তব্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর। সূত্র: জিনিউজ


২৮ জানুয়ারি, ২০১৯ ২০:২৬:৪৭