পাক সেনা বিমানে নিরুদ্দেশ গন্তব্যে আসিয়া বিবি
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
সরকার জানাতে চাইছে না তাঁর ঠিকানা৷ তবে এটুকুই বলা হয়েছে মুলতান জেল থেকে বিশেষ বিমানে আসিয়া বিবিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ তাঁর দেশে থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সংবাদটি ভুয়ো৷ পাক বিদেশ মন্ত্রকের এই বিবৃতির পরেই প্রশ্ন উঠছে, কোথায় এই সংখ্যালঘু মহিলা ? উত্তপ্ত পরিস্থিতির কথা চিন্তা করেই সরকার চুপ৷ রহস্যজনকভাবে নিরুদ্দেশ গন্তব্যে পৌঁছে গিয়েছেন আসিয়া৷

ধর্ম অবমাননা বা ব্লাসফেমি আইনের বলে এতদিন মুলতান জেলেই বন্দি ছিলেন পাক খ্রিষ্টান মহিলা আসিয়া বিবি৷ তাঁকে ফাঁসির সাজা দেওয়া হয়েছিল৷ মৃত্যুর প্রতীক্ষায় থাকা আসিয়ার শাস্তি কমিয়ে দেওয়া হয় পাকিস্তানে নতুন সরকার কায়েম হতেই৷ সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ফাঁসি রদ হতেই সরকার ও প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে টানা জমায়েত ও বিক্ষোভে অচল হয়েছে পাকিস্তান৷ কট্টরপন্থী ইসলামিক সংগঠনগুলির দাবি, ফাঁসি-ই দেওয়া হোক আসিয়াকে৷ এর জেরে অচলাবস্থা তৈরি হয়েছিল পাকিস্তানে৷

২০০৯ সালে আসিয়া বিবির বিরুদ্ধে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ আনা হয়। ২০১০ সালের ডিসেম্বরে নিম্ন আদালত আসিয়া বিবিকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেয়৷ ২০১৫ সালে এই রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে আপিল করেন আসিয়া। সেই মামলায় গত ৩১ অক্টোবর আসিয়া বিবিকে মুক্তি দেয় পাক সর্বোচ্চ আদালত।

পরিস্থিতি বুঝে গোপনে আসিয়া বিবিকে মুলতান জেল থেকে বিশেষ বিমানে ইসলামাবাদের বেনজির ভুট্টো আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে আনা হয়৷ তারপর থেকেই কোনও খবর নেই আসিয়ার৷ তাঁর পরিবারকেও কড়া নিরাপত্তার ঘেরাটোপে রাখা হয়েছে৷ ধারণা করা হচ্ছে কোনও খ্রিষ্টান সংগঠনের হয়ে আসিয়াকে অন্য কোনও দেশে রাজনৈতিক আশ্রয়ে পাঠিয়ে দিতে পারে ইমরান খানের সরকার৷ কারণ পাকিস্তানে থাকলে যে কোনও মুহূর্তে আসিয়ার জীবনহানি হতে পারে৷

এদিকে পাক সংবাদ মাধ্যমে আসিয়া বিবির নিরুদ্দেশ সংক্রান্ত খবর প্রচারিত হতেই নড়েচড়ে বসে বিদেশ মন্ত্রক৷ জানিয়ে দেওয়া হয়ে আসিয়ার দেশত্যাগের খবর ভিত্তিহীন৷ তবে আসিয়ার আইনজীবী যে কট্টরপন্থীদের চাপে আগেই পাকিস্তান ছেড়েছেন সেই বিষয়টি নিশ্চিত৷ তাঁর বিষয়ে বিশেষ কিছু মুখ খুলতে চায়নি পাক সরকার৷ মনে করা হচ্ছে নেদারল্যান্ডসে আশ্রয় নিতে চলেছেন তিনি৷

 

০৮ নভেম্বর, ২০১৮ ২৩:৪৪:৩৫