আইএসের যৌনদাসী থেকে শান্তির নোবেলজয়ী নাদিয়া
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
ঘোষণা হল নোবেল শান্তি পুরস্কারের এবছরের বিজয়ীদের নাম৷ পুরস্কার পেলেন ডেনিস মুখওয়েগি ও নাদিয়া মুরাদ৷ এই দু’জনেই যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ ও এলাকাগুলিতে ধর্ষণের শিকার মহিলাদের উদ্ধারের কাজ করেন৷ পেশায় চিকিৎসক ডেনিস মুখওয়েগি ধর্ষণের শিকার মহিলাদের উদ্ধার করে তাঁদের পুনরায় স্বাভাবিক পরিবেশে ফেরানোর কাজ করেন৷ পাশাপাশি, আইএস জঙ্গিদের দ্বারা ধর্ষণের শিকার নাদিয়া তাঁর এই অবস্থাকেই হাতিয়ার করেন৷ নিজের ভয়ংকর অভিজ্ঞতার কথা ওই সমস্ত মহিলাদের সঙ্গে ভাগ করে নেন তিনি৷ তাঁদের মানসিক অবসাদ কাটানোর জন্য এখনও কাজ করেন নাদিয়া৷

জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে এই কাজের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন ডেনিস মুখওয়েগি৷ কঙ্গোতে মহিলাদের উপর এই নারকীয় অত্যাচারের নিন্দা করেন তিনি৷ যুদ্ধবিধ্বস্ত কঙ্গোতে গণধর্ষণের শিকার মহিলাদের উদ্ধার করেন ডেনিস ও তাঁর স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার কর্মীরা৷ তাঁদের যথাযথ চিকিৎসার ব্যবস্থা করে তাঁরা৷ ওই মহিলাদের পুনরায় স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার জন্য কাজ করেন তাঁরা৷ পুরস্কার প্রদানের সময় ডেনিস মুখওয়েগির কাজের ভূয়সী প্রশংসা করে নোবেল কমিটি৷ কমিটি জানান, ”সমাজের সকল স্তরের মানুষের জন্য ন্যায়ের ব্যবস্থা করাই ডেনিস মুখওয়েগির একমাত্র লক্ষ্য৷ সেই উদ্দেশে তিনি কাজ করে চলেছেন৷ মহিলাদের উপর অত্যাচার রুখতে ও যুদ্ধ থামাতে তাঁর কাজ চিরকাল মনে থাকবে৷”

পাশাপাশি, নাদিয়া মুরাদের কাজেরও প্রশংসা করা হয় নোবেল কমিটির পক্ষ থেকে৷ কমিটির তরফে জানান হয়েছে, ধর্ষণের শিকার মহিলাদের হয়ে কথা বলে মনুষ্যত্বের একটা অন্য দিক স্থাপন করেছেন নাদিয়া৷ তাঁর এই লড়াই মনে রাখার মতো৷ প্রসঙ্গত, নাদিয়া মুরাদ হলেই সেই তিন হাজার ইয়াজিদি মহিলার মধ্যে একজন, যাঁরা আইএস জঙ্গিদের দ্বারা সময়ে সময়ে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন৷ আইএস জঙ্গিদের যৌনদাসীতে পরিণত হয়েছিলেন৷ কিন্তু এরপরেও থেমে থাকেননি তিনি৷ সেই ভয়ংকর অবস্থা থেকে ফিরে এসেছেন নাদিরা৷ কেবল ফিরেই আসেননি তিনি৷ একই অত্যাচারের শিকার হওয়া মহিলাদের জন্য এখন তিনি কাজও করেন৷ নিজের করুণ কাহিনি তাঁদের সঙ্গে ভাগ করে নেন, তাঁদের মানসিক শক্তি জোগান৷ জানা গিয়েছে, এবছর শান্তি পুরস্কার প্রাপকরা প্রত্যেকেই নয় মিলিয়ন সুইডিশ নওর পুরস্কারমূল্য পাবেন৷ -সংবাদ প্রতিদিন

 

০৫ অক্টোবর, ২০১৮ ২২:৩৮:৪৭