আদিয়ালা জেল থেকে ছাড়া পেলেন নওয়াজ-মরিয়ম
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ বুধবার জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। একই সঙ্গে ছাড়া পেয়েছেন তার মেয়ে মারিয়াম নওয়াজ এবং মেয়েজামাতা অবসরপ্রাপ্ত ক্যাপ্টেন মুহাম্মাদ সফদারও। দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত এই তিনজনই গত আড়াই মাস ধরে রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা কারাগারে আটক ছিলেন। বুধবার সকালেই নওয়াজ, মরিয়ম ও মুহাম্মাদ সফদারের সাজা স্থগিত করে তাদের মুক্তির নির্দেশ দেয় পাকিস্তানের উচ্চ আদালত। নওয়াজ শরিফের আপিলের শুনানি শেষে ইসলামাবাদের হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ এ আদেশ দেয়। আপিলের শুনানি শেষে বিচারকরা তাদের রায়ে বলেন, তিনজনের বিরুদ্ধে অ্যাকাউন্টিবিলিটি কোর্টের দেয়া কারাদণ্ড স্থগিত রাখা হলো। কারাগার থেকে বের হওয়ার পর নওয়াজ পরিবার নূর খান বিমানঘাঁটিতে যান। সেখান থেকে একটি ব্যক্তিগত উড়োজাহাজে করে তারা লাহোর রওয়ানা হন।

নওয়াজ পরিবার আদিয়ালা কারাগার থেকে বের হওয়ার আগেই কারাগারের বাইরে জড় হয়েছিলেন পিএমএন-এল এর অনেক কর্মী-সমর্থক। নওয়াজকে নিয়ে গাড়ি বহর কারাগার থেকে বের হলে তারা গোলাপের পাপড়ি ছিটিয়ে তাদের বরণ করেন। তাদের মুক্তির পর রাস্তায় নেমে উল্লাস প্রকাশ করতে দেখা গেছে দলের নেতা-কর্মীদের। নেতার মুক্তির আনন্দে অনেকে মিষ্টি বিতরণ করে। গত ৬ জুলাই নওয়াজ শরিফকে জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পত্তি অর্জনের দায়ে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেয় অ্যাকাউন্টিবিলিটি কোর্ট। এছাড়া তার মেয়ে মরিয়ম নওয়াজকে সাত বছর ও মরিয়মের স্বামী মোহাম্মদ সফদারকে এক বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

রায়ের সময় স্ত্রী কুলসুম নওয়াজের চিকিৎসার জন্য লন্ডনে ছিলেন নওয়াজ ও তার মেয়ে মরিয়ম। রায়ের এক সপ্তাহের মাথায় গত ১৩ জুলাই নওয়াজ ও তার মেয়ে লন্ডন থেকে ফিরলে বিমানবন্দরেই তাদের গ্রেপ্তার করে পাকিস্তানের ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টেবিলিটি ব্যুরো। সে সময় সফদার দেশে ছিলেন। তিনি আদালতে আত্মসমর্পণ করলে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। নওয়াজ, মরিয়ম ও সফদার কারাগারে থাকা অবস্থাতেই মারা যান নওয়াজের স্ত্রী কুসলুম। তার জানাজায় যোগ দেয়ার জন্য গত ১২ সেপ্টেম্বর প্যারোলে মুক্তি দেয়া হয়েছিল নওয়াজ শরিফ ও তার মেয়েকে।

 

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১০:১৩:০৫