‘মার’ খাওয়ার শপথ নিয়ে সরকার গড়তে চললেন ইমরান
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
কারগিল বিজয় দিবসের দিনেই পাকিস্তানে ইমরান উত্থান৷ কতটা সদর্থক হতে চলেছে ইমরানের পথ? নিরপেক্ষ, নীতিগত পরিমাপ সব কিছু ঠিক রেখে কতটা এগোতে পারবে ইমরান? তবে, পাকিস্তানের রাজনৈতিক ইতিহাস বেশ ভয়ঙ্কর৷ দেশটার সার্বভৌমত্ব আসলে সামরিকের নিয়ন্ত্রণে৷ বুক চিতিয়ে ভারতের সঙ্গে বন্ধুতা, বা আন্তর্জাতিক খাতে সামাজিক পদক্ষেপ হোলেই বিপদ৷ সেই সমস্ত বিপদকে জেনে শুনে গিললেন ইমরান খান৷ যে কোনও মুহূর্তেই হামলা আঁছড়ে পড়তে পারে তাঁর উপর, সেই নিশ্চিত আশঙ্কাকে আপন করেই সরকার গড়লেন ‘ক্যাপ্টেন অব পাকিস্তান’৷

সরকার গঠনের আগে সাংবাদিক বৈঠকে জিন্নার স্বপ্নের পাকিস্তান গড়ার আশ্বাস দিয়েছেন ইমরান৷ যার মূল বার্তা দুর্নীতিমুক্ত দেশ৷ মহম্মদ-আলি-জিন্না জমানার ৬৬ বছর পর সেই স্বপ্ন পাক মাটি থেকে উবে গিয়েছে৷ পাকিস্তান পরিণত হয়েছে সন্ত্রাস মদতকারী আইএসআই নিয়ন্ত্রিত দেশে৷ সেই দেশে থেকে স্বচ্ছ, দুর্নীতিমুক্ত সরকার গঠন হয়ত দিবাস্বপ্ন৷

সাহস করে এই বার্তা পাকিস্তানকে দিলেও, মেনে চলতে গেলে একঝাক গুলিই হয়ত ইমরানকে ঝাঁঝড়া করবে, কিংবা বার বার জখম হবেন তেহেরিক-ই-ইনসাফের চিফ৷ তাই ভবিষ্যৎ বা আগামী পর্বে দুটি পথই ইমরানের জন্য খোলা- প্রথমটি, বদলানোর চেষ্টা করে ‘মার’ খাওয়া, বা দুর্নীতির মোড়কে নিজেকে ঢেকে দেওয়া৷ এমনিতেই ইমরান নিয়ে বিপরীত প্রচার তুঙ্গে৷ কয়েকটি সংবাদ সূত্রের দাবি, হাফিজ সঈদ, তালিবান, আইএসআই-এর মদতেই ক্ষমতায় এসেছেন ইমরান৷ রিগিংও করেছে তাঁর দল তেহেরিক-ই-ইনসাফ৷

১১৮ আসনে জিতে সরকার গঠনের পথ প্রশস্ত করেছে ইমরানের দল৷ দেশের বুকে নতুন ইতিহাস সৃষ্টিকারী হিসেবেই ইমরানকে দেখছেন পাকিস্তানের মানুষ৷ সমস্ত বিতর্ককে পিছনে ফেলে ইমরানই এগিয়ে৷ তবে, পাকিস্তানে এরম এগিয়ে যাওয়া অনেক রাষ্ট্রপ্রধান ফাঁসির দড়িতে ঝুলেছেন, জেলে বন্দি হয়েছেন, নির্বাসিত হয়েছেন, প্রাণ হাতে নিয়ে বিদেশেও পালিয়েছেন৷ জলজ্যান্ত প্রমাণ, পারভেজ মুশারফ ও নওয়াজ শরিফ৷ পিএমএল-এন সুপ্রিমো নওয়াজ শরিফ দুর্নীতির দায়ে জেল বন্দি।

একই অভিযোগে দুবাইয়ে রয়েছেন মুশারফ৷ দেশে ফিরলেই একাধিক বিপত্তি তাঁর জন্য অপেক্ষা করছে৷ অতিত ঘাটলে১৯৭৯ সালে জুলফিকর আলি ভুট্টোর ফাঁসি,২০০৭ সালে বেনজির ভুট্টোর বিস্ফোরণে মৃত্যুর উদাহারণও টাটকা৷

পরিস্থিতি যে খাতেই আসুক, পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের পাশে থেকেছে৷ ২০১৮-র ভোটে মুম্বই হামলা মূলচক্রী হাফিজ সঈদের ভোটদান সবচেয়ে বড় প্রমাণ৷ এই পরিস্থিতিতে ইমরানের দুর্নীতিমুক্ত,সন্ত্রাস মুক্ত গণতান্ত্রিক পাকিস্তানের স্বপ্ন বসন্তের হাওয়ার মত লাগলেও প্রতিহিংসার বীজ পাকিস্তানের ভেতরেই৷ সেই আসন্ন সংকটকে জেনেই সরকার গড়লেন ইমরান খান৷

 

 

 

২৭ জুলাই, ২০১৮ ১০:৩৮:৩২