সরকার গড়ছে পিটিআই: ফলাফল প্রত্যাখ্যান পিএমএলের
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন ইমরান খান
পাকিস্তানের বহুল প্রতীক্ষিত জাতীয় নির্বাচন মোটামুটি শান্তিপূর্ণভাবেই শেষ হয়েছে। সবচেয়ে বেশি আসনে জয় পাওয়ায় দেশটিতে নতুন সরকার গড়তে চলেছে ইমরান খানের দল পিটিআই। তবে কারচুপির অভিযোগ এনে ভোটের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দল পিএমএল। এছাড়া ফলাফল ঘোষণায় বিলম্বের কারণে প্রশ্নের মুখে পড়েছেন পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশন।

সরকার গড়ছে ইমরানের দল

বুধবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ব্যাপক ভোটে জয় পেয়েছে পাকিস্তান তেহরিক ই ইসসাফ (পিটিআই)। যদিও সরকারিভাবে এখনও ফলাফল ঘোষণা করা হয়নি। দলের নেতা ইমরান খানের দুর্নীতিমুক্ত নতুন পাকিস্তান (নয়া পাকিস্তান) গড়ার ডাকে ভোটাররা ভালোই সাড়া দিয়েছেন। সর্বশেষ বেসরকারি ভোট গণনায় দেখা যাচ্ছে, ২৭২ আসনের পার্লামেন্ট নির্বাচনে ১২১টি আসনে এগিয়ে রয়েছে পিটিআই।

অন্যদিকে কারাবন্দী নেতা নওয়াজ শরিফের দল পাকিস্তান মুসলিম লীগ-এন (পিএমএল) এগিয়ে আছে মাত্র ৫৮টি আসনে। পাকিস্তানের প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী বেনজীর ভূট্টোর পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) জয় পেয়েছে ৩৫টি আসনে।

প্রাথমিক ভোট গণনায় পিটিআই সবচেয়ে বেশি আসন পেলেও তাদের একক সরকার গঠনের বিষয়টি এখনও নিশ্চিত নয়। কেননা পাকিস্তানের সংবিধান অনুযায়ী একক সংখ্যাগরিষ্ঠ সরকার গঠনের জন্য তাদের কমপক্ষে ১৩৭টি আসন নিশ্চিত করতে হবে। তবে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন  পাক বা না পাক, ক্রিকেট তারকা থেকে রাজনৈতিক নেতা বনে যাওয়া ইমরান খানই যে পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন তা এক প্রকার নিশ্চিত। দলের এই ফলাফলে দারুণ উৎফুল্ল ইমরান ও তার দলের নেতা কর্মীরা। বুধবার রাত থেকেই তারা আনন্দ মিছিল করতে শুরু করেছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীর উদ্দেশে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখবেন ইমরান খান।

ফলাফল প্রত্যাখ্যান

বুধবার অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেছে পাকিস্তানের অন্যতম রাজনৈতিক দল পিএমএল-এন। বুধবার রাতে লাহোরে এক সংবাদ সম্মেলন ডাকেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের ভাই শাহবাজ শরিফ। সেখানে তিনি নির্বাচনে কারচুপি ও নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে ভোটের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেন। সেখানে তিনি বলেন,‘জনগণের রায়কে চরমভাবে অগ্রাহ্র করার কারণে আমি এই ফলাফল পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করতে বাধ্য হচ্ছি।’তিনি ফলাফল প্রকাশে বিলম্ব করায় পাকিস্তান নির্বাচন কমিশনের তীব্র সমালোচনা করেন। প্রসঙ্গত, নওয়াজ শরিফ কারাবন্দি থাকায় দলের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তার ভাই শাহবাজ শরিফ।

ফলাফল প্রকাশে বিলম্ব

বুধবার স্থানীয় সময় সকাল ৮টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়। একটানা ভোট চলে স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত। এরপরই ভোট গণনা শুরু হওয়ার কথা ছিল। রাত ৯টা থেকেই নির্বাচনী ফলাফল প্রকাশ এবং বুধবার মধ্যরাতের মধ্যেই মোটামুটি ফলাফল ঘোষনা হয়ে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু নির্বাচনের ১২ ঘণ্টা পেরিয়ে যাওয়ার পরও আনুষ্ঠানিক ফলাফল ঘোষণা করতে পারেনি নির্বাচন কমিশন। এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিরোধী দলগুলো। ভোটের পাতানো ফলাফল ঘোষনা করা হবে বলেও অভিযোগ তুলেছে পিএমএল ও পিপিপিসহ অন্যান্য দলগুলো। তবে তাদের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনী কর্মকর্তারা বলছেন, প্রযুক্তিগত ক্রটির কারণে তাদের মেশিন বাদ দিয়ে হাতে ভোট গুনতে হচ্ছে। আর এ কারণেই ভোটের ফলাফল ঘোষণায় বিলম্ব হচ্ছে।

পাকিস্তানের ইতিহাসে এ নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। দেশটিতে এ নিয়ে মাত্র দ্বিতীয়বারের মত একটি বেসামরিক সরকার নির্বাচিত দলের কাছে তাদের দায়িত্ব হস্তান্তর করতে চলেছে। বুধবার সংসদের পাশাপাশি পাকিস্তানের চার প্রদেশ পাঞ্জাব, বালোচিস্তান, খাইবার পাখতুনখওয়া এবং সিন্ধুতে একই সঙ্গে ভোট হয়েছে।

নির্বাচন উপলক্ষে দেশ জুড়ে নেয়া হয়েছিল কঠোর নিরাপত্তা। শান্তিপূর্ণ ভোটদান নিশ্চিত করতে ভোটকেন্দ্রগুলোতে মোট আট লাখ নিরাপত্তা সদস্য মোতায়েত করা হয়েছিল যার মধ্যে ছিল ৩ লাখ ৭১ হাজার ৩৮৮ জন সেনা। এর আগে পাকিস্তানের কোনো নির্বাচনে এত বিপুল সংখ্যক সেনা মোতায়েন করা হয়নি।

এ নির্বাচনে সবমিলিয়ে ১১৮৫৫জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বী করছেন। তবে মূল লড়াই হয় সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দল পিএমএল-এন, অন্যতম বিরোধী নেতা ইমরান খানের পিটিআই ও প্রয়াত বেনজির ভুট্টোর পুত্র বিলাবল ভুট্টোর দল পিপিপি-র মধ্যে৷ দুর্নীতি মামলায় ১০ বছর সাজা হওয়ার কারণে এ নির্বাচনে অংশ নিতে পারেননি কারাবন্দী নওয়াজ শরিফ। তার বদলে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন তার ভাই শাহবাজ শরিফ৷

এদিকে ভোটের দিনেও সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে পাকিস্তানে। কোয়াটা শহরে বুধবার এক ভোটকেন্দ্র সংলগ্ন সড়কে বোমা হামলার ঘটনায় পুলিশসহ কমপক্ষে ৩৩ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে ২০ জনের বেশি মানুষ।

সূত্র: বিবিসি

 

 

২৬ জুলাই, ২০১৮ ১১:১৫:০৬