ভারতের বিরুদ্ধে পরমাণু হামলার হুমকি পাক প্রধানমন্ত্রীর
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
ফের যুদ্ধের হুঙ্কার দিল পাকিস্তান৷ এবার ভারতের বিরুদ্ধে পরমাণু হামলার হুমকি দিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহিদ আব্বাসি৷ কয়েকদিন ধরেই জম্মু-কাশ্মীরে লাগাতার সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করে চলেছে পাকিস্তান৷ ভারতীয় সেনার ঘাঁটি লক্ষ্য করে ক্রমাগত গোলাবর্ষণ করছে পাক রেঞ্জাররা৷ ওই হামলায় শহিদ হচ্ছেন ভারতীয় জওয়ানরা৷ এমনই পরিস্থিতিতে ফের উত্তাপ বাড়িয়ে পরমাণু আস্ফালন পাক প্রধানমন্ত্রীর৷ তাঁর দাবি, ভারতের ‘কোল্ড স্টার্ট’ ডকট্রাইনে জল ঢেলে দেবে স্বল্প দূরত্বের পারমাণবিক মিসাইল৷ ভারত হামলা করলে ওই পারমাণবিক মিসাইলের হামলা চালানো হবে৷ উল্লেখ্য,  পাকিস্তান বেগড়বাই করলে আগে থেকেই বেছে রাখা নির্দিষ্ট লক্ষ্যে আগাম হামলা চালাবে ভারত৷ মূলত মিসাইল ঘাঁটি, রাডার কেন্দ্র, অস্ত্র ও জ্বালানির ভাণ্ডারে হামলা চালিয়ে পাক সেনাকে পঙ্গু করে দেওয়া হবে৷ ‘কোল্ড স্টার্ট’ ডকট্রাইন নীতিতে সেরকমটাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷

পাকিস্তানের পরমাণু অস্ত্রভাণ্ডার নিয়ে উদ্বিগ্ন আন্তর্জাতিক মহল৷ এক রিপোর্ট মোতাবেক, পাকিস্তানের হাতে রয়েছে প্রায় ১৩০টি পরমাণু বোমা৷ সেই পারমাণবিক অস্ত্র জেহাদিদের হাতে পড়লে ফল ভয়ঙ্কর হবে৷ এনিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আমেরিকাও৷ বুধবার, সবাইকে আশ্বস্ত করে পাক প্রধানমন্ত্রী জানান, দেশের পারমাণবিক অস্ত্র সুরক্ষিত রয়েছে৷ সেগুলির নাগাল পাবে না সন্ত্রাসবাদীরা৷ তিনি আরও জানান, এখনও পর্যন্ত স্বল্প দূরত্বের পারমাণবিক মিসাইল মোতায়েন করেনি পাকিস্তান৷ তবে সময়ে তার ব্যবহার করতে পিছপা হবে না সেনা৷

প্রসঙ্গত, চলতি বছরই ‘নাসর’ ব্যালিস্টিক মিসাইলের পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ করে পাকিস্তান। পাক সেনার দাবি ৬০ থেকে ৭০ কিমি পর্যন্ত নির্ভুল আঘাত হানতে সক্ষম ওই ক্ষেপণাস্ত্র। যুদ্ধক্ষেত্রে কৌশলগত লক্ষ্যে আঘাত হানাই এই মিসাইলের মূল উদ্দেশ্য। তবে পাকিস্তানের মিসাইল উৎক্ষেপণ নিয়ে বিশেষ উদ্বিগ্ন নয় ভারত। ইতিমধ্যে, দেশের আকাশকে লৌহবেষ্টনীতে মুড়ে ফেলতে রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ‘ট্রায়াম্ফ’ ক্ষেপণাস্ত্ররোধী ব্যবস্থা কিনতে চলেছে ভারত। ‘ট্রায়াম্ফ’ ৪০০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে অন্তত ৩০০টি লক্ষ্যবস্তুকে চিহ্নিত করতে সক্ষম৷ একইসঙ্গে তিন ডজন লক্ষ্যবস্তুকে ধ্বংসও করতে পারবে৷ দেশের গুরুত্বপূর্ণ পারমাণবিক কেন্দ্র ও সরকারি ভবনগুলি এর ফলে নিরাপদ হবে৷ পাক ও চিনা পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্রের হামলা থেকেও অনেকটা নিশ্চিন্ত থাকবে ভারত৷

 

 

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১০:১৭:৪৪