যুদ্ধের হুঁশিয়ারি চিনা সংবাদ মাধ্যমের, প্রস্তুত ভারতও
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
শেষ পর্যন্ত ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধের প্রস্তুতি শুরু করে দিল চিন? চিন সীমান্ত থেকে ভারতীয় সেনা সরাতে কি অভিযান চালাবে পিপলস লিবারেশন আর্মি? চিনের সংবাদমাধ্যমে কিন্তু তেমনই হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে৷ দুই আন্তর্জাতিক সর্ম্পক বিশেষজ্ঞকে উদ্ধৃত করে চিনের দৈনিক সংবাদ পত্র ‘গ্লোবাল টাইমসে’ বলা হয়েছে ডোকলাম থেকে ভারতীয় সেনা ‘তাড়াতে’ চিন খুব শীঘ্রই ‘ছোট সামরিক অভিযান’ চালাতে পারে৷ ‘গ্লোবাল টাইমস’ যেহেতু চিন সরকারের মুখপত্র, তাই জল্পনা আরও বাড়ছে৷ খবরে প্রকাশ, ভারতের সেনাকে নিজেদের ভূখণ্ডে আর এতটুকুও বরদাস্ত করতে রাজি নয় চিন৷ ভারত যদি তাদের সেনা প্রত্যাহার না করে তাহলে দু’সপ্তাহের মধ্যে চিন অভিযান চালাবে৷

ডোকলাম সীমান্ত উত্তেজনা দিন দিন বেড়েই চলেছে৷ দুই পক্ষই তাদের অবস্থানে অনড়৷ ভারতের তরফ থেকে একাধিকবার আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের কথা বলা হয়েছে৷ কিন্তু চিনের দাবি সীমান্ত থেকে ভারত আগে সেনা প্রত্যাহার করুক৷ তারপর আলোচনায় বসা হবে৷ এই রকম পরিস্থিতিতে চিন সম্প্রতি ১৫ পাতার একটি নথি পেশ করে দাবি করে ভারত ডোকলাম সীমান্তে আগ্রাসন ভুমিকার পরিচয় দিয়েছে৷ ডোকলাম আসলে চিন ও ভুটানের মধ্যে বিবাদের বিষয়৷ ভারত অযথা প্রতিবেশী দেশের আভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলাচ্ছে বলে অভিযোগ করে চিন৷ তাই চিন ভারতকে নিঃশর্তে সেখান থেকে সেনা প্রত্যাহার করার হুঁশিয়ারি দেয়৷

ডোকলাম নিয়ে ভারতের ভূমিকায় চিন ক্ষুব্ধ হলেও সরকারি ভাবে যুদ্ধের কোনও ইঙ্গিত দেওয়া হয়নি৷ কিন্তু চিনের মিডিয়াতে বিশেষত গ্লোবাল টাইমস প্রতিদিন নিয়ম করে এই ইস্যু নিয়ে হুঁশিয়ারি দিয়েই চলেছে৷ সেই ধারা বজায় রেখে এবার সরাসরি যুদ্ধের হুঁশিয়ারি দিল গ্লোবাল টাইমস৷

খবরে দুজন বিশেষজ্ঞের বক্তব্য উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে, ভারত সেনা প্রত্যাহার না করলে দু’সপ্তাহের মধ্যে অভিযান চালাবে চিন৷ আরেক বিশেষজ্ঞ ডোকলাম সমস্যার জন্য ভারতকেই দায়ী করেন৷ তিনি বলেন, চিনের প্রতি ভারতের নীতি অপরিণত৷ উন্নয়নের নিরিখে ভারত চিনের বরাবর কখনোই আসতে পারবে না৷ তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন ডোকলাম সমস্যার জন্য ফল ভোগ করতে ভারতকে প্রস্তুত থাকতে হবে৷

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী থেকে শুরু করে বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ পর্যন্ত বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন৷ সংসদে সুষমা দাবিও করেছেন, এই বিষয়ে দুই দেশের আলাপ-আলোচনা চলছে৷ তা সমাধান হতে খুব বেশি সময় লাগবে না বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি৷ তবে চিন যদি সীমান্তে কোনও রকম অগ্রাসন দেখায় তার জন্য ভারতও যথেষ্ট প্রস্তুত৷ ইতিমধ্যে ডোকলাম সীমান্তে বাড়তি সেনা মোতায়েন করা হয়েছে৷ চিন যদি আগে থেকে কোনও হামলা চালায় তাহলে এপার থেকে তার যোগ্য জবাব দিতে নয়াদিল্লি যে দ্বিতীয়বার ভাববে না এটাই স্বাভাবিক৷

০৬ আগস্ট, ২০১৭ ১৪:২৪:৫৫