মধুর বন সুন্দরবন
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডট কম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট


সুন্দরবন মানেই শুধু সুন্দরী গাছ আর রয়েল বেঙ্গল টাইগার নয়। সেখানে পাওয়া যায় সুস্বাদু মধুও। সেগুলো যারা সংগ্রহ করেন তাদের বলা হয় মৌয়াল।

মধু সংগ্রহের মরসুম: প্রতিবছর এপ্রিল থেকে জুন, এই তিনমাস মধু সংগ্রহ করা হয়। এ সময় বন বিভাগের অনুমতি নিয়ে দল বেঁধে বনে প্রবেশ করেন মৌয়ালরা।

দোয়াদরুদ পড়ে নেয়ামধুর বন সুন্দরবন: মধু সংগ্রহ করতে যাওয়ার আগে বিশেষ প্রার্থনা করে নেন মৌয়ালরা। কারণ সেখানে বাঘের ভয়ের পাশাপাশি আছে ডাকাতের ভয়। কেউ কেউ পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে বিদায় নিয়ে যান।

কয়েকজনের দলমধুর বন সুন্দরবন: মৌয়ালরা বন বিভাগ থেকে কয়েকজন মিলে একটি দল গঠন করে মধু সংগ্রহ করতে যাওয়ার অনুমতি পান। এরপর নৌকা করে প্রায় মাসখানেকের জন্য বেরিয়ে পড়েন।

নিয়মকানুনমধুর বন সুন্দরবন: মধু সংগ্রহের কিছু নিয়মনীতি ঠিক করে দিয়েছে বন বিভাগ। যেমন মৌচাক থেকে মৌমাছি সরানোর সময় আগুনের ধোঁয়া ব্যবহারের কথা বলা হয়েছে। কিন্তু অভিযোগ আছে মৌয়ালরা অনেক সময় নিয়ম না মেনে মৌচাকে আগুন ধরিয়ে দেন।

মধু উৎপাদন হ্রাসমধুর বন সুন্দরবন: অনেকসময় নিয়মনীতি না মেনে মধু ও মোম সংগ্রহ করায় বিভিন্ন প্রজাতির মৌমাছির বংশ ধ্বংস হচ্ছে বলে গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে অভিযোগ করা হয়েছে। এতে সুন্দরবন থেকে দিন দিন মধু সংগ্রহের পরিমাণ কমছে বলে জানা গেছে।

বনে আগুনমধুর বন সুন্দরবন: মৌচাক থেকে মধু সংগ্রহ করতে গিয়ে কখনও কখনও সুন্দরবনে আগুন লাগার ঘটনাও ঘটে।

মৌয়ালদের দুর্দশা: জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মধু ও মোম আনতে যান মৌয়ালরা। কিন্তু এরপর যে টাকা পান তা দিয়ে কোনোরকমে সংসার চালাতে হয় তাদের। নৌকা ভাড়া ও বনদস্যুদের চাঁদা দিতেই আয়ের একটা বড় অংশ চলে যায় মৌয়ালদের।

 


২৫ মে, ২০১৫ ২০:২০:৩৭