জেসিয়াকে নিয়ে সালমানের ভিডিও বার্তা
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
কয়েকদিন আগে অভিনয়শিল্পী সালমান মুক্তাদিরের বাসার সামনে মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ জেসিয়া ইসলামের ভাঙচুর করার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। এ বিষয়ে ফেসবুকে ভিডিও বার্তায় কথা বলেন জেসিয়া ইসলাম। আজ (১৯ জানুয়ারি) বিষয়টি নিয়ে ভিডিও বার্তা দিয়েছেন সালমান মুক্তাদিরও।

সালমান মুক্তির বলেন, ‘আমি কোন ব্যাখ্যা দিবো না। আমি শুধু একটা কথাই বলতে চাই, আমি কোন প্রতারণা করিনি। এটার জন্য আমার কোন প্রমাণ দিতে হবে না। কারণ, গত এক বছরে এই সম্পর্কের জন্য আমি যে পরিমাণ নিজেকে পরিবর্তন করেছি, যে পরিমাণ সময় অপচয় করেছি সেটা আমি জানি, আপনারাও জানেন। গত এক দেড় বছরে আপনারাও পরিবর্তনটা দেখেছেন।’

তিনি বলেন, ‘মানুষকে নিয়ে যতটুকু আমরা টানাটানি করতে পারি আমাদের তাতে মজা লাগে। আমাদের লাইভে কাজকর্ম অনেক কম, আশা অনেক কম। ট্রাফিকে বসে থাকার চেয়ে বেশি আমাদের কিছু করার নেই। তাই ইন্টারনেটে যতটুকু খুত বের করে ভালো অনুভব করার যায় সেটাই আমরা করি।’

জেসিয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘জেসিয়া তার কাজের জন্য ক্ষমা চেয়েছে। সে যেটা করেছে সেটা কিছু সহিংস, এজন্য সে ক্ষমা চেয়েছে। আম্মুকে ফোন দিয়েছে, সে সবাইকে ফোন দিয়েছে, ভিডিওতে সে ক্ষমা চেয়েছে। এছাড়া সে আর কী করতে পারে যাতে আপনাদের কাছ থেকে সে ক্ষমা পেতে পারে। সে এবং আমি দু’জনই জানি না কীভাবে সে ক্ষমা পেতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘বিষয়টা এখানেই থামানো উচিৎ। আমি মানসিকভাবে অনেক শক্ত। আমি অনেক কিছু নিতে পারি, অনেক ঘৃণা নিতে পারি কিন্তু সবাই এটা নিতে পারে না। আমি সবার কাছে অনুরোধ করবো তাকে নিয়ে ট্রল করা বন্ধ করুন।’

জেসিয়ার সঙ্গে সম্পর্কের অবনতির বিষয়ে ব্যাখ্যা না দেয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ব্যাখ্যা করতে গেলে কেন ওইদিন আমার আব্বু-আম্মু কান্নাকাটি করছিলেন, কেন আমি কথা বলছিলাম না, কেন সে আমার বাসায় আসলো, কেন আমি কয়েকদিন আগে ব্রেকআপ করেছি সবকিছু টেনে এখানে একটা ড্রামা তৈরি করা খুবই অপ্রয়োজনীয়। এটা ব্যক্তিগত বিষয়। আর এটা করতে গেলে আমি আমাকে সেভ করে জেসিয়াকে সমস্যায় ফেলতে পারি না। আমি তাকে আমার নিজের জন্য বিব্রত করতে পারবো না।’

‘তবে হ্যাঁ, যারা আমাকে বিশ্বাস করে আমি তাদের বলবো, আমি কোন প্রতারণা করিনি। আমার অতীতের বিষয়ে আমি সৎ ছিলাম। আমি এত বাজেভাবে সৎ ছিলাম যে, আমার জীবনের সবচেয়ে বড় ভুলগুলো আমি বলে দেই। কারণ আমি ভেবেছিলাম, অনেস্টি ইজ দ্যা বেস্ট পলিসি। আমি সরি, এটার ব্যাপারে আমি ভুল ছিলাম। অনেস্টি ইজ নট দ্যা বেস্ট পলিসি।’

যে মেয়েই তার জীবনে আসুক না কেন তার অতীতের কথা জেনে তাকে কোনভাবেই আর বিশ্বাস করবেন না বলেও স্বীকার করেন সালমান মুক্তাদির।

জেসিয়ার পক্ষে সুর দেয়ার পাশাপাশি পুরো বিষয়টির জন্য সামলান দায়ী করেন ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি যিনি ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছেন তাকে।

এরআগে শুক্রবার (১৮ জানুয়ারি) ফেসবুকে দেয়া ভিডিও বার্তায় জেসিয়া বলেন, ‘সেদিন আমি ওভার রিয়্যাক্ট করেছি, এটা করা ঠিক হয়নি। প্রতিটা সম্পর্কে ভুল বোঝাবুঝি কিংবা ঝগড়া হয়ে থাকে। যা হোক, যে সেদিন ভিডিওটা রেকর্ড করে ফেসবুকে ছেড়েছে, তাকে অনুরোধ করব পরবর্তী সময়ে কোনো ভিডিও যেন সে না ছাড়ে। আপনার জীবনে কিংবা পরিবারে যদি সমস্যা হয়, সেটা আপনি রেকর্ড করতে পারেন না।’

জেসিয়া আরও বলেন, ‘দয়া করে পুরো ঘটনা না জেনে ফেসবুকে কিছু শেয়ার করবেন না। সেদিন আমার রাগ নিয়ন্ত্রণ করার দরকার ছিল, যেটা আমি করিনি। শুরু থেকে আমি আমার ভালো ভাবমূর্তি ধরে রাখতে পারিনি। ভবিষ্যতে আমি ভালো কিছু করতে চাই, যেটা দেখে সবাই গর্ববোধ করবে।’

এরআগে জেসিয়া ইসলাম মাঝরাতে প্রেমিক সালমান মুক্তাদিরের বাড়িতে যান। এসময় নিরাপত্তারক্ষীদের দরজা খুলতে বললে তারা সেটি খুলেন না। এরপরই জোরে জোরে দরজা পেটাতে শুরু করেন জেসিয়া। এক পর্যায়ে নিচে নেমে আসে সালমানের মা। তাকে দরজা খুলতে বলা হলে তিনিও সেটি খুলেন না। এরপর ইট দিয়ে ভাঙচুর শুরু করেন জেসিয়া। এমনকী অশালীন ভাষায় গালিগালাজ করেন তিনি।

২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ সুন্দরী প্রতিযোগিতার বিজয়ী হয়ে তারকাখ্যাতি লাভ করেছেন জেসিয়া। অপরদিকে ইউটিউবার হিসেবে বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেন সালমান মুক্তাদির।



২৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ০৯:৪৫:৫১