মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের প্রয়াণ দিবস আজ
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
বাংলা সিনেমার কিংবদন্তি অভিনেত্রী সুচিত্রা সেনের পঞ্চম প্রয়াণ দিবস আজ। ২০১৪ সালের এই দিনে কলকাতায় দেহ ত্যাগ করেন তিনি। সুচিত্রা সেনের জন্ম ১৯৩১ সালের ৬ এপ্রিল পাবনার গোপালপুর মহল্লার হেমসাগর লেনে। সুচিত্রার শৈশব কৈশর কেটেছে পাবনাতে। বাবা করুণাময় দাশগুপ্ত ছিলেন পাবনা পৌরসভার সেনেটারি ইন্সপেকটর ও মা ইন্দ্রিরা দাশ গুপ্ত ছিলেন গৃহিনী। বাবা-মায়ের পঞ্চম সন্তান ছিলেন সুচিত্রা সেন। ১৯৪৭ সালে কলকাতার বিশিষ্ট বাঙালি শিল্পপতি আদিনাথ সেনের ছেলে দীবানাথ সেনের সঙ্গে বিয়ে হয় তার। তাদের ঘরে একমাত্র সন্তান মুনমুন সেন।

সুচিত্রার ডাক নাম ছিল রমা সেন। পাবনার মহাখালি পাঠশালায় প্রাইমারি পাঠ চুকিয়ে তিনি ভর্তি হন পাবনা গার্লস স্কুলে। এখানে দশম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করেন তিনি। ১৯৬০ সালে তার বাবাও তাদের বসতভিটাটি রেখে সপরিবারে পারি জমান কলকাতায়। মৃত্যুর আগে দীর্ঘদিন লোকচক্ষুর আড়ালে ছিলেন চলচ্চিত্রে ইতিহাস সৃষ্টি করে যাওয়া এ নায়িকা। 

১৯৮২ সালের কলকাতা ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল এবং ১৯৮৯-এ রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ভরত মহারাজের মৃত্যুর পর সর্বশেষ তাকে জনসমক্ষে দেখা গিয়েছিল।

দীর্ঘ ২৫ দিন লড়াই করে ২০১৪ সালের ১৭ জানুয়ারি মৃত্যুর কাছে হার মানেন মহানায়িকা সুচিত্রা সেন। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে কলকাতার বেলভিউতে বেসরকারি একটি হাসপাতাল শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালীন তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর।

এদিকে, সুচিত্রা সেনের পঞ্চম প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে পাবনায় বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করেছে জেলা প্রশাসন, সুচিত্রা সেন স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদসহ বিভিন্ন সংগঠন। সকাল ১০টায় পাবনা শহরের গোপালপুর মহল্লার হেম সাগর লেনে মহানায়িকার পৈতৃক বাড়িতে তার ভাস্কর্যে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হবে। পরে সুচিত্রার শৈশবের স্মৃতিবিজড়িত বিদ্যাপীঠ পাবনা টাউন গার্লস হাইস্কুল পর্যন্ত পদযাত্রায় অংশ নেবেন সর্বস্তরের মানুষ। পদযাত্রার পর স্কুল প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে ‘সুচিত্রা সেন স্মরণসভা। এর বাইরে সুচিত্রা সেন অভিনীত চলচ্চিত্রের গান পরিবেশন করা হবে। এছাড়াও সপ্তসুর পাবনার আয়োজনে বেলা সাড়ে ১১টায় অন্নদা গোবিন্দ পাবলিক লাইব্রেরি অডিটোরিয়ামে আয়োজন করা হয়েছে স্মরণসভার।

 

১৭ জানুয়ারি, ২০১৯ ১২:১৪:৩৮