মনোনয়ন না পেয়ে অভিমানে রাজনীতি ছাড়লেন মনির খান
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট


শুধু দল থেকে নয়, মনোনয়ন না পাওয়ার কষ্টে রাজনীতি ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন সংগীতশিল্পী ও বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মনির খান।রোববার বিকেল ৫টার দিকে মনির খান তার এই পদত্যাগপত্র জমা দেন।

কলেজজীবন থেকে ছাত্রদলের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত মনির খান। ২০০৮ সাল থেকে সক্রিয়ভাবে বিএনপিতে যুক্ত হয়ে যান। গানের মঞ্চের পাশাপাশি রাজপথেও সক্রিয় থেকেছেন দেশের জনপ্রিয় এই গায়ক। এখন থেকে আবার পুরোদস্তুর গান নিয়ে মেতে থাকতে চান। মনির খানের ভাষায়, ‘আমি শিল্পী মানুষ, রাজনীতি করতে আর ইচ্ছে করছে না। রাজনীতির মধ্যে যে কৌশলগত দিক আছে, সেটার সঙ্গে আমি নিজেকে মানিয়ে নিতে পারছি না।

‘মনে হচ্ছে, রাজনীতির মধ্যে সামনে যত দিন যাচ্ছে, জীবনটা অন্ধকারে চলে যাচ্ছে। এদিকে আমার ভক্তরাও চাইছেন, আমি যেন গানে ব্যস্ত হই। তাদের আহ্বান আর আমার সুস্থ জীবনযাপনের আকাঙ্খা থেকে রাজনীতি থেকে সরে দাঁড়িয়েছি। কাউকে অভিযোগ করতে চাই না।’

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঝিনাইদহ-৩ (মহেশপুর-কোটচাঁদপুর) আসন থেকে বিএনপি থেকে মনোনয়ন চেয়েছিলেন দেশের এই বিশিষ্ট সংগীতশিল্পী। প্রাথমিকভাবে দলের মনোনয়নের চিঠি পেয়ে জমাও দিয়েছিলেন। কিন্তু আসনটি জোটের শরিক জামায়াত ইসলামকে ছেড়ে দেওয়ায় চূড়ান্ত তালিকায় ঠাঁই হয়নি তার। এরপরই পদত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নেন মনির খান।

মনির খান বলেন, ‘মনোনয়ন পাওয়া না পাওয়া একাবারে বড় কারণ নয়। মনোনয়ন পেলে রাজনীতি করব, আর না পেলে করব না এমন ছিল না। আমি গানের মানুষ, গানের মাধ্যমে জনগণের কাছে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে। রাজনীতি জনগণের জন্য, গানও তাই। কিন্তু দিন দিন রাজনীতি খুব কঠিন মনে হচ্ছে।’

বিএনপি সূত্র থেকে জানা গেছে, আসনটিতে জামায়াতের ভোট বেশি হওয়ায় বিএনপি ছাড় দিয়েছে। এখানে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবেন ঝিনাইদহ জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি মতিয়ার রহমান।

 


০৯ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২০:৪৭:৪৭