‘মধ্যরাতে সালমান এসেছিল আমার বাড়িতে’ মুখ খুললেন শিল্পা
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট


সালমান খান ও শিল্পা শেঠির সম্পর্ক নিয়ে আজও কানাঘুষো চলে টিনসেলে। একসময় নাকি চুটিয়ে ডেট করতেন এই দুই তারকা। কিন্তু সত্যিটা কী? শিল্পার কথায়, শুধু বন্ধুত্ব। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে শিল্পা বলেন, ” এগুলো সব মিথ্যা জল্পনা ছাড়া আর কিছু নয়। শুধু বন্ধুত্ব ছাড়া আমাদের মধ্যে কোনও সম্পর্ক কোনওদিন ঘরে ওঠেনি”।


এই প্রসঙ্গ টেনে নায়িকা বলেন, ” সলমন মাটির কাছের মানুষ। খুব লাভিং ও কেয়ারিং। আমার মনে আছে, একবার গভীর রাতে ও আমার বাড়িতে এসেছিল। তখন আমি ঘুমিয়েছিলাম। সলমন আর আমার বাবা বার টেবিলে আড্ডা দিয়েছিল সেরাতে। আর যেদিন বাবা মারা যান। সেদিনও ও এসেছিল। আর বার টেবিলে মাথা দিয়ে কান্না করেছিল। আসলে আমরা খুব ভাল একটা বন্ধুত্বপূর্ন সম্পর্ক শেয়ার করি। সেখানে প্রেমের কোনও জায়গা নেই”।

প্রসঙ্গত কিছুদিন আগে, সিডনি থেকে মেলবর্ন যাওয়ার কথা ছিল শিল্পা শেট্টির৷ সময়মত কোয়ানটাস এয়ারপোর্টে পৌঁছেও গিয়েছিলেন তিনি৷ এয়ারপোর্টে ঢুকে, বোর্ডিংয়ের সময় আসতেই লাগেজ নিয়ে চেক ইন কাউন্টারে যেতেই ঘটল বিপত্তি৷ শিল্পার সঙ্গে ছিল দুটো ব্যাগ৷ সেই ব্যাগদুটির মধ্যে একটি ব্যাগ নাকি ওভারসাইজড ছিল৷ যার জন্য তাঁকে ওভারসাইজড কাউন্টারেও পাঠানো হয়৷ কিন্তু সেখানে অন্য একজন কতৃপক্ষ শিল্পাকে জানায় যে ব্যাগটি একেবারেই মাত্রাতিরিক্ত নয়৷

এমনকি শিল্পা নিজের ইনস্টাগ্রামে যে ছবিটি দিয়েছেন তাতেও ব্যাগটি অর্ধেকের বেশি ফাঁকাই লাগছে৷ কেবল ব্যাগ নিয়ে তাঁকে হেনস্থা হতে হয়েছে এমনটা নয়৷ তিনি ভারতীয় বলে বর্ণবিদ্বেষের শিকারও হতে হয়েছে৷ মেল নামের সেই মহিলা স্টাফ শিল্পার সঙ্গে অত্যাধিক কঠোর রূঢ় ভাষায় কথা বলে৷ যার পরেও শিল্পা চুপ থাকাই শ্রেয় মনে করেছিলেন৷ যেখানে বিমানবন্দরের অন্যান্য স্টাফরা শিল্পার ব্যাগটিকে ওভারসাইজড বলে অভিযোগ জানাননি সেখানে মেল বারবার শিল্পাকে অপমান করে তাঁর ব্যাগটি চেকইনে পাঠাতে চায়নি।

নিজের ইনস্টাগ্রামে বিষয়টি লিখে ব্যাগের ছবি দিয়ে পোস্ট করেন৷ সঙ্গে এও লিখেছেন যে এই ধরণের ব্যবহার একেবারেই গ্রহণযোগ্য নয়৷ ভারতীয়দের দুর্বল ভাবা একেবারেই ঠিক নয়৷ এভাবে তারা বারবার ব্রণবিদ্বেষের শিকার হবে না৷ পাশাপাশি নেটিজেনের কাছেও জানতে চেয়েছেন তাঁর ব্যাগটি আদেও অতিরিক্ত বড়ো ছিল কিনা৷ সূত্র: কলকাতা২৪

০৫ অক্টোবর, ২০১৮ ২২:৩৪:৪০