‘মায়ের মৃত্যুর পর ফিল্মই আমাকে বাঁচিয়ে দিয়েছে’
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
এক মাস পরেই ক্যারিয়ারের প্রথম সিনেমার প্রিমিয়ার হচ্ছে শ্রীদেবী কন্যা জাহ্নবী কপূরের। বলিউডের অনেকেই অপেক্ষায় রয়েছেন সেই সিনেমার। তবে গত কয়েকটা মাস কি ভাবে কেটেছে, তা একমাত্র তিনিই জানেন। মাস চারেক আগে মায়ের মৃত্যুতে জীবনটা যেন মুহুর্তেই ওলটপালট হয়ে যায়। সেই শোক কাটিয়ে শুটিং ফ্লোরে পা রেখেছিলেন জাহ্নবী। তার পর থেকে অপেক্ষা শুধু ২০ জুলাইয়ের। সে দিনই মুক্তি পাবে প্রথম সিনেমা।

মায়ের মৃত্যুর পর নিজের মনের কথাগুলো এত দিন মিডিয়ার কাছে শেয়ার করেননি শ্রীদেবীর মেয়ে জাহ্নবী। তবে এই প্রথম মন খুলে তিনি কথা বলেছেন। এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, মায়ের মৃত্যুর পর কী ভাবে কেটেছে তার।

জানিয়েছেন, কী ভাবে ফিল্মের সঙ্গেই দিন শুরু আর শেষ হতো তাদের। ফিল্ম ছাড়া যেন কোনও কিছুই ভাবতে পারতেন না বনি আর শ্রীদেবী। আর জানিয়েছেন, মায়ের মৃত্যুর পর ফিল্মের কাজটা না থাকলে হয়তো বেঁচে থাকতে পারতেন না।

উল্লেখ্য, গত ২০ ফেব্রুয়ারি দুবাইয়ের এক হোটেলে অস্বাভাবিক মৃত্যু হয় শ্রীদেবীর। ‘ধড়ক’ তখন শুটিং ফ্লোরে। ঘটনার শোক কাটিয়ে উঠতে সময় লেগেছিল। তবে সেই শোক কাটিয়ে মায়ের মৃত্যুর কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই শুটিং ফ্লোরে ফিরে যান তিনি। যা দেখে প্রশংসা করেছেন পরিচালক শশাঙ্ক খৈতান।

তিনি বলেছেন, ‘সে সময় যতটা পারতাম সেটের পরিবেশটাকে স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করতাম আমরা। বেশি সহানুভূতির জানানোর চেষ্টা করা হলে তা জাহ্নবীর পক্ষে হিতে বিপরীত হতো। কী হয়ে গিয়েছে তা না ভেবে শুধুমাত্র কাজের দিকে ফোকাস করতাম। জানতাম, সময় সব কিছু ভুলিয়ে দেবে। তবে ওর সাহসকে কুর্নিশ জানাই।’ সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

 

২১ জুন, ২০১৮ ০৯:৫০:১২