বড়পর্দায় আসার আগে এই অভিনেত্রীরা কী করতেন?
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়
টলিউডে ছোটপর্দা থেকে বড়ো পর্দার দূরত্ব ঠিক কতোটা! আরও কাছে সময়ের অপেক্ষা তো কারও কাছে নাই প্রতীক্ষার শেষ। তবে টেলিপাড়ার এমনকিছু অভিনেত্রী আছে যাঁরা আজ ছাঁপিয়ে গিয়েছে টলিপাড়ার নায়িকাদের। চোখ রাখব তাঁদের দিকে।

স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়: যাবদপুর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী স্বস্তিকা৷ সেই সময় ‘দেবদাসী’ সিরিয়ালের পরিচালকের নজর কেড়েছিল স্বস্তিকার সৌন্দর্য৷ যিনি তাঁর প্রোডাকশন হাউজে স্বস্তিকাকে কাজের অফার দেন৷ পর্দার দুনিয়ায় অভিষেক হয় স্বস্তিকার৷ এরপর বিভিন্ন সিরিয়াল যেমন ‘এক আকাশের নীচে’, ‘প্রতিবিম্ব’তে অভিনয় করতে দেখা যায় তাঁকে৷ যেখানে স্বস্তিকার সাবলীল অভিনয় নজরকাড়ে বড়ো পরিচালকদের৷ ২০০৩ সালে ‘হেমন্তের পাখি’ দিয়ে বড়পর্দায় হাতেখড়ি হয় নায়িকার৷ তারপর আর ফিরে তাকাতে হয়নি তাঁকে৷ আজ তিনি টলিউডের লিডিং লেডিদের মধ্যে একজন৷বড়পর্দায় আসার আগে এই অভিনেত্রীরা কী করতেন?

পাওলি দাম: সালটা ২০০৩। ‘জীবন নিয়ে খেলা’ সিরিয়ালের হাত ধরে অভিনয় জীবন শুরু করেন পাওলি দাম৷ তাঁর অভিনয় দক্ষতায় মুগ্ধ হয়ে পরিচালক সুদেষ্ণা রায় তাঁকে ছবির অফার দেন। ২০০৪ সালে সুদেষ্ণার ‘তিন ইয়ারি কথা’ দিয়ে শুরু হয় পাওলির বড়পর্দার যাত্রা৷ তারপর একের পর এক ভিন্ন ধরণের ছবিতে এক্সপেরিমেন্ট করা শুরু করেন তিনি৷ এমনকি টলিউড ছাপিয়ে তিনি পৌঁছে যান বলিউডে। তাঁর ‘হেট স্টোরি’ প্রশংসা পায় সমালোচকদের৷বড়পর্দায় আসার আগে এই অভিনেত্রীরা কী করতেন?

পার্নো মিত্র: রবি ওঝা প্রোডাকশনের সিরিয়াল ‘খেলা’ দিয়ে নিজের অ্যাক্টিং কেরিয়ার শুরু করেন পার্নো মিত্র৷ এছাড়াও বিভিন্ন সিরিয়ালে কখনও লিড চরিত্রে, আবার কখনও বা পার্শ্ব চরিত্রে মুগ্ধ করেছিলেন অঞ্জন দত্তকে৷ তারপরই জীবনের সবথেকে বড় ব্রেক পেলেন তিনি৷ অঞ্জন দত্তের পরিচালনায় ‘রঞ্জনা আমি আর আসব না’র মুখ্য চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পান৷ আর এখন বলিউডের বহু পরিচালকের ছবিতে অভিনয় করে চলেছেন তিনি৷বড়পর্দায় আসার আগে এই অভিনেত্রীরা কী করতেন?

সোহিনী সরকার: ‘ওগো বধূ সুন্দরী’ সিরিয়ালে মিষ্টি বৌদি হয়ে মন কেড়েছিলেন দর্শকদের৷ পার্শ্ব চরিত্র হলেও দর্শক মনে বেশ ছাপ ফেলেছিলেন সোহিনী সরকার৷ তারপরই অফার পান ‘অদ্বিতীয়’ ধারাবাহিকের লিড ক্যারেক্টারের৷ সেখান থেকেই এক লাফে চলে যান বড়পর্দায়৷ অতনু ঘোষের পরিচালনায় ‘রূপকথা নয়’ ছবিতে অহনার চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি৷ তারপরই ‘ফোরিং’, ‘ওপেন টি বায়োস্কোপ’র মতো ছবি তাঁর ঝুলিতে আসতে থাকে৷ এখন তিনি টলি পরিচালকদের পছন্দের নায়িকাদের মধ্যে একজন।

ঋতাভরী চক্রবর্তী: ‘ওগো বধূ সুন্দরী’র প্রসঙ্গ যখন উঠলই তখন ঋতাভরী চক্রবর্তীর কথা না উঠলে কী আর হয়৷ এই ধারাবাহিকেই মুখ্য ভূমিকায় দেখা যায় তাঁকে৷ সিরিয়ালটি শেষ হওয়ার পর ‘তোমার সঙ্গে প্রাণের খেলা’ সিনেমায় বিগ স্ক্রিনে অভিনয় করেন৷ সম্প্রতি বলিউডি সিনেমা ‘পরী’ ছবিতে অভিনয় করে বেশ প্রশংসিত হয়েছেন তিনি৷ ঋতাভরীর মতো গ্ল্যামার টলিউডে আর কারও আছে কিনা সে নিয়ে বেশ সন্দেহ রয়েছে৷

১৯ মে, ২০১৮ ২৩:৩৫:১৭