‘আমি ও খুশি মা হারিয়েছি, কিন্তু বাবা নিজের ‘জান’ হারিয়েছেন’
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
মা থাকলে ২১-এ পা দেওয়ার আনন্দই আলাদা হতো। কিন্তু এখন জীবনটাই যেন আলাদা হয়ে গিয়েছে। সারা পৃথিবীর কাছে ‘ড্যান্সিং ডিভা’, ‘রূপ কি রানি’, ‘চাঁদনি’ জাগতিক জগৎকে বিদায় জানিয়েছেন। মা হারানোর বেদনা একমাত্র জাহ্নবী ও খুশি কাপুরই জানতে পেরেছেন। জন্মদিনে সেই বেদনাই উঠে এল চিঠির পাতায়। যে চিঠি শ্রীদেবী-কন্যা জাহ্নবী লিখলেন ইনস্টাগ্রামে।

খোলা চিঠিতে নিজের তীব্র যন্ত্রণার কথা প্রকাশ করেছেন জাহ্নবী। জানেন এর সঙ্গেই তাঁকে বাঁচতে হবে। সেই চেষ্টাই করছেন বলে জানান শ্রীদেবী-কন্যা। জানিয়েছেন, কীভাবে জীবনের প্রতিটা পদক্ষেপে মা ছিলেন তাঁর পাশে। এখনও চোখ বুঝলে মায়ের হাসিমুখটিই দেখতে পাচ্ছেন জাহ্নবী। কেবল মা নয় তাঁর বেস্ট ফ্রেন্ড ছিলেন শ্রীদেবী। এক মুহূর্তের জন্যও মেয়েকে একা থাকতে দিতেন না। এমনকী মেয়ের প্রথম ছবির শুটিংয়ের খুঁটিনাটিও তিনিই নজরে রাখতেন। মার সেই স্মৃতিকে নিয়েই সারা জীবন বাঁচবেন। আর চেষ্টা করবেন এমন কাজ করার যাতে মা নামকে আরও উজ্জ্বল করতে পারেন। সেই ‘মাম্মা’, যিনি তাঁর জীবনের সমস্ত কিছু ছিলেন।

২৪ তারিখ দুবাইয়ের পাঁচতারা হোটেলে মৃত্যু হয়ে নায়িকার। প্রথমে জানা গিয়েছিল, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছিল তাঁর। কিন্তু পরে ফরেনসিক রিপোর্টে জানা যায়, বাথটবের জলে আকস্মিকভাবে ডুবে মৃত্যু হয়েছে অভিনেত্রীর। আইনি জটিলতায় দুবাই থেকে ভারতে আনতে প্রায় দুই দিন কেটে যায়। এরই মধ্যে শ্রী-র ‘রহস্যমৃত্যু’ নিয়ে তোলপাড় হয় মিডিয়ার একাংশ। এ নিয়েও নিজের পোস্টে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন জাহ্নবী। জানান, ‘আমি ও খুশি মা হারিয়েছি, কিন্তু বাবা নিজের ‘জান’ হারিয়েছেন।’ তাঁর মা এক অসামান্য অভিনেত্রী ছিলেন। সেই প্রতিভাকে উপযুক্ত সম্মান দেওয়ার আরজি টুকুই নিজের ২১তম জন্মদিনে জানালেন শ্রী-কন্যা।

০৩ মার্চ, ২০১৮ ২২:৪৮:৫০