ভাইরাল প্রিয়ার গান নিষিদ্ধ করতে স্মৃতি ইরানির দ্বারস্থ কট্টরপন্থীরা
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
‘ভ্যালেন্টাইনস ডে’ পেরিয়ে গিয়েছে। কিন্তু প্রিয়ার মায়াবী চোখের প্রেমের রেশ এখনও কাটেনি। ঋষি কাপুরের মতো অভিনেতাও আক্ষেপ করে বলছেন, কেন প্রিয়া ভারিয়ের তাঁর সময়ে জন্ম নেননি। তবে এত খ্যাতির মধ্যে রয়েছে কিছু বিড়ম্বনাও। রাতারাতি পরিচিতি পেতেই কট্টরপন্থী রোষের মুখে প্রিয়ার ভাইরাল হওয়া গানটি। এবার গানের শব্দ নিয়ে আপত্তি তুলল ঔরঙ্গাবাদের জন জাগরণ সমিতি মহারাষ্ট্র নামের একটি সংগঠন। গানে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করা হয়েছে বলে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

সংগঠনের সভাপতি মহসিন আহমেদের অভিযোগ, গানের কথায় হজরত মহম্মদ ও তাঁর প্রথমা পত্নী খালেদার পবিত্র প্রেমকে অপমান করা হয়েছে। এর জন্য প্রযোজক, পরিচালক ও গীতিকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানো হয়েছে। অবিলম্বে গানটি সোশ্যাল মিডিয়া থেকে ডিলিট করে নিষিদ্ধ করার দাবিও জানানো হয়েছে। এই মর্মে জিনসি থানায় অভিযোগ জানানো হয়েছে। শোনা গিয়েছে পুলিশের পক্ষ থেকে অভিযোগটি হায়দরাবাদ পুলিশের কাছে পাঠানো হয়েছে।

এরই মধ্যে রাজা অ্যাকাডেমি নামে মুম্বইয়ের একটি সংগঠনও কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী স্মৃতি ইরানিকেও চিঠি লিখে গানটি নিষিদ্ধ করার আবেদন জানিয়েছেন। গানের বিরুদ্ধে তাঁরাও ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত হানার অভিযোগ এনেছে। প্রসঙ্গত একই অভিযোগে কিছুদিন আগেই দারুল ইফতা জামিয়া নিজামিয়া নামে এক সংগঠন এই গানের বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করে। গানটি বন্ধ না করা হলে সেন্সরের দ্বারস্থ হওয়ার হুমকিও দেওয়া হয়। এমন গান না দেখে ও প্রিয়া ভারিয়েরের মতো রাতারাতি হওয়া সেলিব্রিটিকে ফলো না করে পকোড়া বেচার পরামর্শও দিয়েছেন মধ্যপ্রদেশের হোসঙ্গাবাদের বিজেপির খেল প্রকোষ্ঠের জেলা সংযোজক সঞ্জীব মিশ্র। তবে এ বিতর্কের মধ্যেও দাবানলের মতো বাড়ছে প্রিয়ার জনপ্রিয়তা। আর তা বলিউডের দুয়োরেও পৌঁছে গিয়েছে। শোনা এও যাচ্ছে যে, খুব শিগিগিরিই বি-টাউনে অভিষেক ঘটতে পারে নেটদুনিয়ার এই সেন্সেশনের।

 

 

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১২:১১:২৩