অপু বিশ্বাসের সেই কথিত বয়ফ্রেন্ড কে?
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
গত কদিন ধরেই যে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল সেটাই সত্যি হলো। চিত্রনায়ক শাকিব খান তার স্ত্রী চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসকে বিবাহ বিচ্ছেদের নোটিশ পাঠিয়েছেন। তার আইনজীবী শেখ সিরাজুল ইসলাম  এই নোটিশের খবর নিশ্চিত করেছেন। সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘নোটিশে শাকিব দুটি কারণ দেখিয়েছেন। তিনি অভিযোগ করেছেন অপু তাদের ছেলেকে কাজের লোকের কাছে রেখে কথিত বয়ফ্রেন্ডকে নিয়ে ভারতে বেড়াতে গিয়েছেন। দ্বিতীয় অভিযোগে শাকিব জানিয়েছেন, অপু তার কোন নির্দেশই মেনে চলেন না তাই তিনি বিবাহ বিচ্ছেদ চান।’

বিয়ের খবর প্রকাশের আট মাসের মাথায় বিবাহ বিচ্ছেদে গেলেন তারা। এখন প্রশ্ন হচ্ছে অপুর "কথিত বয়ফ্রেন্ড কে?" প্রশ্নর উত্তর জানার জন্য গণমাধ্যমকর্মীরা অপুর নিকেতনের বাসায় ভিড় জমান। অপু বিশ্বাস বাড়িতে থাকা সত্বেও সে এখন কারো সাথে দেখা কিংবা কথা বলছেন না।যদিও শাকিব তার ডিভোর্স পেপারে অপুর সেই কথিত বয়ফ্রেন্ডের নাম উল্লেখ করেননি। তার উকিলও কোনো নাম উল্লেখ করছেন না। 

এদিকে শাকিব খানের একাধিক ঘনিষ্ঠ সূত্র জানাচ্ছে, অপু বিশ্বাসের সেই বয়ফ্রেন্ড নিয়ে একাধিকার শাকিবের কানে কথা গিয়েছে। সেই বয়ফ্রেন্ড চলচ্চিত্রের একজন নায়ক! যার সঙ্গে ইদানিং অপুর মেশামেলা বেড়েছে। এমনকি অপু সম্প্রতি ভারতে গেলে সেই নায়কও তখন ছিলেন ভারতে।

শুধু তাই নয়, শাকিব দেশের বাইরে থাকাকালীন অপুর সঙ্গে সেই কথিত বয়ফ্রেন্ড দেখা করতো। অপুর বাসায় সেই প্রেমিকের যাতায়াতের সাক্ষ্য নাকি দিয়েছেন বাসার দারোয়ান। এই সব খবরই শাকিবের কাছে পৌঁছানোর পর অপুর ‍উপর বিরক্ত হয়েছেন শাকিব।

আরও গুঞ্জন ছড়িয়েছে, নিকেতনে নিজের বাসার আশপাশে সেই কথিত প্রেমিককে ফ্ল্যাট খুঁজে দেয়ার চেষ্টা করেছেন অপু বিশ্বাস। নিজের বাসার ম্যানেজারকে সেই দায়িত্ব দিয়েছেন তিনি। এমনকি সেই নায়ক প্রেমিকের সঙ্গে জুটি বেঁধে ছবি করার চেষ্টাও করছেন অপু। তবে কেই সেই বয়ফ্রেন্ড তা বিস্তারিত বলেননি শাকিব। জানাননি তার নামও। তাই চলচ্চিত্রপাড়ায় এখন সোনার হরিণের মতো সন্ধান চলছে সেই নাম উদ্ধারের। ধারণা করা হচ্ছে শুটিং শেষ করে দেশে ফিরে এই বিষয়ে মুখ খুলবেন তিনি।

দীর্ঘদিন বিয়ের খবর গোপন রাখার পর চলতি বছরের ১০ এপ্রিল (সোমবার) হঠাৎ করেই অপু একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে ছেলে আব্রামকে সাথে করে সরাসরি সাক্ষাৎকার দিতে আসেন। সাক্ষাৎকারে অপু বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্যের সাথে তাদের গোপন বিয়ের কথা প্রকাশ করেন। তবে এ বিয়ের কথা শাকিব প্রথমে নাকোচ করে দিলেও পরে অবশ্য মেনে নিয়েছিলেন। অপুর টিভি চ্যানেলের লাইভে এসে এমন অপ্রত্যাশিত ঘটনার জন্য শাকিব বেশ ক্ষুব্ধতা প্রকাশ করেন।

কারণবসত অপু-শাকিব-বুবলি যেনো ধীর গতিতে আলোচনার রূপ নিতে থাকে। আলোচনার সূত্র ধরে নানা সময়ে নানা কারণেই দেশের বিভিন্ন অন-লাইন পোর্টালে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদের কিছু সংবাদও প্রকাশ হয়েছিল। এবার জানা গেলো আসল ঘটনা। অতীতের সকল গুঞ্জনকে এবার যে শাকিব খান সত্যি সত্যিই প্রমাণ করে দিলেন। শাকিবের একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র থেকে জানা গেছে, শাকিব নাকি অপুর নিকেতনের বাসায় আইনজীবীর মাধ্যমে তিনদিন আগে তালাকনামা পাঠিয়েছেন।

০৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:৪০:৫৬