‘চরিত্রহীন অভিনেত্রীরা নিজের ইচ্ছায় অন্যের শয্যাসঙ্গী হন’
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
ইনোসেন্ট ভারিদ থেক্কেথালা
কাস্টিং কাউচ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে নেটিজেনদের তীব্র সমালোচনার মুখে পড়লেন ভারতের কেরালার জনপ্রিয় অভিনেতা তথা সাংসদ ইনোসেন্ট ভারিদ থেক্কেথালা। তার মতে, ‘যারা খারাপ মেয়ে, তারাই কাস্টিং কাউচের শিকার হয়।'

৭২ বছর বয়সি এই সাংসদ-অভিনেতা বুধবার সাংবাদিকদের বলেন, ‘মেয়েদের সঙ্গে কোনো খারাপ ব্যবহার হলে সংবাদমাধ্যম সঙ্গে সঙ্গে তা জেনে যায়। মালয়লম ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি এখন একেবারে পরিচ্ছন্ন। আগের মতো এখানে এখন আর কোনো কাস্টিং কাউচের অস্তিত্ব নেই। যদি মেয়েটি খারাপ হয়, তবেই একমাত্র তার বিছানায় যাওয়ার ঘটনা ঘটে।'

মালয়লম ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে সদ্য গজিয়ে ওঠা মহিলা সংগঠন দ্য উওমেন ইন সিনেমা কালেক্টিভ ফেসবুকে সাংসদের এই মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করে লিখেছেন, ‘সিনেমার জগতে প্রবেশের জন্য নতুন শিল্পীদের নানা যৌন হেনস্থার মুখে পড়তে হচ্ছে। এমনকী আমাদের সহকর্মী পার্বতী ও লক্ষী রাই কাস্টিং কাউচ নিয়ে খোলাখুলি বলেছেন। জনসমক্ষে এমন মন্তব্য করার আগে আরও সচেতন হওয়া উচিত সাংসদের।'

ড্যামেজ কন্ট্রোলে ফেসবুক পোস্টে পরে সাংসদ অভিনেতা জানান, ‘আমার মন্তব্যের ভুল মানে করা হয়েছে। যা প্রকাশিত হয়েছে তা আমি বলতে চাইনি। আমি শুধু এটাই বলতে চেয়েছি আগের থেকে এখন মহিলাদের জন্য কাজের পরিবেশ অনেক ভালো হয়েছে।’

০৭ জুলাই, ২০১৭ ১০:৪৩:৫৭