জেনে নিন আপনার প্রিয় তারকাদের বদ অভ্যাস গুলো
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট


বড় থেকে ছোটো প্রায় সকল মানুষেরই থাকে বদ অভ্যাস। হতে পারে সে পলিটিকাল লিডার বা অভিনয় জগতের বিশিষ্ট ব্যক্তি। যাদের আপনারা দেখে এসেছেন অভিনয়ের পর্দায়, তাদের যে কোন বদ অভ্যাস থাকতে পারে সেটা এক প্রকার ধারণার বাইরে। চলুন জেনে নেওয়া যাক আপনার প্রিয় তারকাদের বদ অভ্যাস গুলি কি?

১। প্রথমেই আসা যাক, সকলের প্রিয় বুম্বা দা অর্থাৎ প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় এর কথায়। তাঁর বদ অভ্যাস বলতে ছেলে। তাঁর ছেলে যখন হোস্টেলে যায় তখন সারা রাত ধরে ছেলের ব্যাগ পরিপাটি করে গুছিয়ে দেওয়া তাঁর অভ্যাস। কিন্তু ব্যাগের সব কিছু ঠিক আছে কিনা তা দেখার জন্য ব্যাগটি প্রায় ছয় থেকে সাত বার খুলে দেখা তাঁর বদ অভ্যাস।

২। আবির চ্যাটার্জি নামটা শুনলেই মেয়েদের যেন হার্ট বিট অনেকটাই বেড়ে যায়। সেই ব্যোমকেশ ওরফে আবিরের যে কোন বদ অভ্যাস থাকতে পারে তা বোধহয় একেবারেই বিশ্বাসযোগ্য নয়। আবিরের বদ অভ্যাসটি হল তিনি ঘন ঘন ব্যাগ চেক করতে থাকেন যে তার আই কার্ড ঠিক ঠাক আছে কিনা। আর তাতে তার বউ বেজায় চোটে জান। কারণ বহুবার আই কার্ড হারিয়েছেন তিনি। তাই আতঙ্কে ভোগেন সবসময় আর চেক করতে থাকেন বার বার যে সব ঠিক আছে কিনা।

৩। টালিগঞ্জের জনপ্রিয় অভিনেত্রী নুসরত জাহান। তাঁর অভ্যাস হল সে তার ঘর পরিপাটি করে গুছিয়ে রাখেন। তবে বদ অভ্যাস হল ঘর ঘুছিয়ে রাখার পর ও তার মনে হয় ঘর নোংরা আছে। তাই আবারও পরিষ্কার করতে থাকেন। এমনকি কোন বন্ধুর বাড়ি গেলেও যদি নোংরা দেখেন সেখানেই তাকে বকা দেন, এবং পরিষ্কার করতে থাকেন।

৪। বব বিশ্বাস ওরফে শাশ্বত চ্যাটার্জি। সকলের প্রিয় অপু দা বদ অভ্যাস হল হাতের কাছে তার জিনিস খুঁজে না পেলেই বাড়ির লোকের উপর চিৎকার করতে থাকেন। এর ফলে মেয়ে এবং বউ খুবই ভয়ে ভয়ে সর্বক্ষণ তটস্থ থাকেন।

৫। অঞ্জন দত্তের রঞ্জনা পার্নো মিত্র। টলি হার্ট থ্রব এই নায়িকার বদ অভ্যাস হল ফোন খুঁজে না পাওয়া। ব্যাগে রেখেও ফোন হারিয়ে ফেলেছেন এটাই ভাবতে থাকেন সারাক্ষণ। ভুল করে কথাও রেখে দিয়ে আর খুঁজে না পেয়ে লোককে ব্যতিব্যস্ত করে তোলেন পার্নো।


১৫ জুন, ২০১৭ ২০:৪২:২৬