পাঠ্যবইয়ে ভুলের জন্য দায়ীদের ছাড় দেওয়া হবে না: শিক্ষামন্ত্রী
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম
অ+ অ-প্রিন্ট
নতুন পাঠ্যবইয়ে ভুলের জন্য দায়ীদের কাওকে ছাড় দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ার করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের বিভিন্ন বইয়ে ভুলের কারণে সমালোচনার মধ্যে মঙ্গলবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই হুঁশিয়ারি দেন।

কম সময়ে ছাপতে গিয়ে পাঠ্যপুস্তকে ভুল হয়েছে স্বীকার করে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, অমার্জনীয় ভুলের ঘটনায় জড়িত প্রত্যেককে শাস্তি দেয়া হবে। 

নাহিদ বলেন, ভুলত্রুটির বিষয়ে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) একটি কমিটি করেছে। কেন হল, কারা দায়ী- তা বের করা হবে। প্রাথমিকভাবে দুইজনকে চিহ্নিত করে ওএসডি করা হয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, 'ছোট ছোট ভুল ছাপার মিসটেকের কারণে হতে পারে। কিন্তু বড় বড় ভুল যেমন: কাভার পেইজে বড় অক্ষরে ছাপার শব্দে বানান ভুল, কবিতা বিকৃতি। এগুলো ক্ষমার অযোগ্য।'

বিশ্ব ব্যাংক ও এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের অর্থায়নের কারণে আন্তর্জাতিক টেন্ডারসহ নানা জটিলতায় প্রাথমিকের বই পরিমার্জন ও ছাপানোর ক্ষেত্রে এনসিটিবির সময় কম পাওয়ার কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর ভুল-ত্রুটির সংশোধনী দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ভুল ত্রুটি হতেই পারে। তারপরও বই পাচ্ছে আনন্দ করছে, উৎসব করছে। কেবল ভুল তুলে ধরে এগুলোকে নিরুৎসাহিত করে ছাত্র-ছাত্রীদের হতাশ করে দেওয়া ঠিক না। বছরের প্রথম দিন ৪ কোটি ৩৩ লাখ ৫৩ হাজার ২০১ জন শিক্ষার্থীর হাতে এবার ৩৬ কোটি ২১ লাখ ৮২ হাজার বই ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করে সরকার। সেসব বইয়ে এবার ভুলের ছড়াছড়ির কারণে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ব‌্যাপক সমালোচনা হচ্ছে।

প্রথম শ্রেণীর বাংলা বইয়ে 'অ' দিয়ে বাক্য বানাতে একটি ছাগলের ছবি দিয়ে লেখা হয়েছে, 'অজ (ছাগল) আসে'। 'আ' এর ক্ষেত্রে 'আম' শব্দ বানিয়ে লেখা হয়েছে 'আম খাই'। কিন্তু 'আম খাই' বোঝাতে একটি আম গাছের নিচের অংশে দুই পা তুলে একটি ছাগলের দাঁড়িয়ে থাকায় ছবি দেয়া হয়েছে।   

অপ্রচলিত শব্দ 'অজ' ব্যবহার ও 'আম খাওয়া' বোঝাতে ছাগলের ছবি নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে। 

 

১০ জানুয়ারি, ২০১৭ ১৩:০৩:৩২