রোজা না পরীক্ষা: দ্বন্দ্বে ব্রিটেনের মুসলিম ছাত্র-ছাত্রীরা
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
ব্রিটেনে ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে তারা যেন তাদের পরীক্ষাকেই অগ্রাধিকার দেয়
ব্রিটেনে রমজান মাসে মুসলিম ছাত্র-ছাত্রীরা রোজা রেখে পরীক্ষায় খারাপ ফল করতে পারে বলে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে।

ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে তারা যেন তাদের পরীক্ষাকেই অগ্রাধিকার দেয়। ব্রিটেনে এবছর জিসিএসই পরীক্ষা পড়েছে রমজান মাসে। এ নিয়ে শিক্ষকদের একটি ইউনিয়ন উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

ব্রিটেনের ধর্মীয় নেতাদের কেউ কেউ বলেছেন, যেসব শিক্ষার্থীর জন্য রোজা রেখে পরীক্ষা দেয়াটা খুব কষ্টকর হয়ে পড়েছে, তাদের প্রতিদিন রোজা না রাখলেও চলবে। মুসলিম ছাত্র-ছাত্রীদের অনেকে এ নিয়ে বেশ দ্বন্দ্বে পড়েছেন, বুঝতে পারছেন না কোনটাকে প্রাধান্য দেবেন।

ল্যাংকারশায়ারের নেলসনে থাকেন জয়নাব এবং আয়েশা। দুজনেই এখন পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়ে ব্যস্ত।

জয়নাব প্রতি বছর সবদিনই রোজা রাখেন। কিন্তু এবার পরীক্ষার জন্য সব রোজা করতে পারছেন না।

“রোজা রাখতে পারছি না, সেজন্যে খারাপ লাগছে। আমার যেদিন যেদিন পরীক্ষা থাকে, সেদিন রোজা রাখছি না, তবে অন্যদিনগুলোতে রোজা রাখছি।”

ব্রিটেনের এসোসিয়েশন অব স্কুল এন্ড কলেজ টিচার্সের একজন মুখপাত্র আনা কোল বলেছেন, রোজার মত শিক্ষা অর্জনও মুসলিমদের জন্য ধর্মীয় এবং নৈতিক কর্তব্য।

“যদি রোজা রাখতে গিয়ে পরীক্ষার ফলের ওপর প্রভাব পড়ে, যদি তা স্মরণশক্তি এবং মনোযোগে বিঘ্ন ঘটায়, তাহলে তাদের রোজা না রাখলেও চলবে, আমাদের সেটাই বলা হয়েছে।”

কামাল হানি একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক যেখানে বেশিরভাগ ছাত্র-ছাত্রীই মুসলিম।

এসোসিয়েশন অব স্কুল এন্ড কলেজ টিচার্স যাদের সঙ্গে পরামর্শ করে রোজা সম্পর্কিত তথ্য পাঠিয়েছে তিনি তাদের একজন।

কামাল হানি বলেন, পরীক্ষার কারণে রোজা না রাখার বিষয়ে ইসলামে সবাই যে একমত হবেন তা নয়। কিন্তু প্রয়োজনে এ নিয়ে শিক্ষার্থীরা তাদের স্কুলে বা ইমামের কাছে গিয়ে পরামর্শ নিতে পারে। বিবিসি বাংলা

১৬ জুন, ২০১৬ ০৮:৫৭:৩০