বাংলাদেশ ব্যাংকে অস্থিরতা
দ্য বেঙ্গলি টাইমস ডটকম ডেস্ক
অ+ অ-প্রিন্ট
রিজার্ভ চুরির ঘটনার সুরাহা না হওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মকর্তাদের মধ্যে পারস্পারিক আস্থাহীনতা বিরাজ করছে। পাঁচ মাস ধরে ফাঁকা দুই ডেপুটি গভর্নরের পদ। আর পায়ে আঘাত পেয়ে বাসায় থেকে অফিস করছেন গভর্নর ফজলে কবির। বিশ্লেষকদের মতে, এ পরিস্থিতি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের জন্য সুখকর নয়। এদিকে, ডেপুটি গভর্নর নিয়োগের জন্য গঠিত সার্চ কমিটির প্রধান জানিয়েছেন, চলতি মাসেই চূড়ান্ত সুপারিশ জমা দেয়া হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের অর্থ চুরির ঘটনায় মার্চে পদত্যাগ করেন গভর্নর আতিউর রহমান। সরিয়ে দেয়া হয় দুই ডেপুটি গভর্নর আবুল কাশেম ও নাজনিন সুলতানাকে। ফলে চারজনের কাজ করতে হচ্ছে দুই ডেপুটি গভর্নরকে।

ঘটনার শুরু থেকেই অস্থরিতা দেখা দেয় ব্যাংক কর্মকর্তাদের মধ্যে। ফরাসউদ্দিন তদন্ত কমিটিও রিজার্ভ চুরিতে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মকর্তাদের জড়িত থাকার ইঙ্গিত দিয়েছে। এর সুরাহা না হওয়ায় পারস্পারিক আস্থাহীনতা ও অস্থিরতা কাটছে না।

সম্প্রতি সিড়ি মাড়াতে গিয়ে পায়ে আঘাত পেয়ে বাসায় বসে অফিস করছেন গভর্নর ফজলে কবির। আর অর্থ উদ্ধারে ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে অংশ নিতে যুক্তরাষ্ট্র গেছেন ডেপুটি গভর্নর রাজী হাসান। বিশ্লেষকরা বলছেন, এ অবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ কোন সিদ্ধান্ত নেয়া ও বাস্তবায়ন করা কঠিন। এজন্য দ্রুত ডেপুটি গভর্নর নিয়োগ অপরিহার্য।

ডেপুটি গভর্নর নিয়োগের জন্য গঠিত সার্চ কমিটির প্রধান জানিয়েছেন, আগস্ট মাস শেষ হবার আগেই যোগ্য প্রার্থীদের নিয়োগের সুপারিশ করা হবে।

ব্যাংক কর্মকর্তাদের মধ্যে আস্থা ফেরাতে রিজার্ভ চুরিতে জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনি ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন বিশ্লেষকরা।

 

২৭ আগস্ট, ২০১৬ ২২:৩৯:৪৫