নরসিংদীতে মা-মেয়েকে গণধর্ষণ: প্রধান আসামি গ্রেপ্তার
নরসিংদী প্রতিনিধি
অ+ অ-প্রিন্ট
নরসিংদীর শিবপুরে মা-মেয়েকে গণধর্ষণের ঘটনায় আলোচিত মামলার প্রধান আসামি মোখলেছকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১১।

সোমবার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে একই জেলার মাধবদী পৌরসভা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বিকেলে র‌্যাব-১১ এর ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক(সিও) লে. কর্নেল কাজী শামশের উদ্দিন তার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানান।

ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক জানান, গ্রেপ্তারকৃত মোখলেছ মা-মেয়ে ধর্ষণের ঘটনার মূল হোতা। র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে তিনি এ ঘটনার দায় স্বীকার করেছে। তার বিরুদ্ধে এর আগেও ধর্ষণ এবং অস্ত্র আইনসহ বিভিন্ন অভিযোগে আরও ছয়টি মামলা রয়েছে। ধর্ষণের ঘটনার সঙ্গে জড়িত এই মামলার অন্যান্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

গত ১৫ মার্চ সকালে ঢাকা থেকে হবিগঞ্জগামী একটি যাত্রীবাহী বাসে চড়ে মা ও মেয়ে একসঙ্গে বাড়ি ফিরছিলেন। সন্ধ্যায় বাসটি ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে নরসিংদী জেলার শিবপুরের সৃষ্টিগড় বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বিকল হয়ে যায়। এসময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত স্থানীয় বাসিন্দা মোখলেছ ও তার পাঁচ সহযোগী দেলোয়ার হোসেন, শফিক, বাদল, বাবু এবং আলমগীর মিলে মা ও মেয়েকে অন্য বাসে উঠিয়ে দেয়ার কথা বলে সেখানকার একটি জুট মিলের (প্রাইম জুট মিল) পরিত্যক্ত কক্ষে নিয়ে যায়। পরে মোখলেছের নেতৃত্বে ওই ছয়জন মা ও মেয়েকে একসঙ্গে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এসময় মা-মেয়ের চিৎকারে স্থানীয়রা এসে তাদের উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। 

এই ঘটনায় পরদিন শনিবার সকালে শিবপুর মডেল থানায় গণধর্ষণের শিকার মা বাদী হয়ে ছয়জনের নাম উল্লেখ করে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।

এর আগে আনোয়ার হোসেনের ছেলে দেলোয়ার হোসেন (৩০) ও আব্দুল বারেকের ছেলে শফিক (২৫) নামে ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ।

শিবপুর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মমিনুল ইসলাম বলেন, গণধর্ষণের শিকার মা ও মেয়েকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়। এই ঘটনায় ২ জনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে এবং বাকিদের গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে।

 

১৮ মার্চ, ২০১৯ ২২:৫৭:০৩