কক্সবাজারের ঈদগাঁওতে অপহৃত ৪ কৃষককে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করেছে পুলিশ
শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার
অ+ অ-প্রিন্ট
কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁও ইউনিয়নের ভাদিতলা এলাকা থেকে অপহৃত ৪ জন কৃষককে উদ্ধার করেছে ঈদগাঁও তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ।

শুক্রবার রাতে ও শনিবার বিকালে ঈদগাঁও তদন্ত কেন্দ্রের সহকারী উপ-পরির্দশক (এএসআই) লিটনুর রহমান জয় এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ এ অভিযান চালায়। তবে  ঘটনায় জড়িত কাউকে আটক করা যায়নি।

এলাকাবাসি ও পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার রাতে রাতে ঈদগাঁও ইউনিয়নের ভোমরিয়া ঘোনা সাততারা নামক স্থান থেকে অপহরণকারী চক্রের সদস্য তাদের অস্ত্রের মুখে  শ্রমিক আবু তালেব ও আবু শামা অপহরণ করে নিয়ে যায়।

ঘটনার খবর পেয়ে ঈদগাঁও তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই লিটনুর রহমান জয় এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ ভাদিতলার গভীর জঙ্গলে অভিযান চালায়। পুলিশী অভিযান টের পেয়ে অপহরণকারী চক্র আবু শামাকে রাস্তায় ফেলে যায়। এসময় আহত অবস্থায় আবু শামাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। তবে ওই সময় অপহরণের শিকার আবু তালেবকে উদ্ধার করতে পারেনি।

পুলিশ আরো জানায়, শুক্রবার (৮ মার্চ) গভীর রাতে ঈদগাঁও ইউনিয়নের পশ্চিম ভাদিতলা এলাকার ফয়েজুর রহমানের ছেলে দিনমজুর মুজিবুর রহমান ও একই এলাকার আবদু সালামের ছেলে আবদু শুক্কুর ধান ক্ষেত পাহারা দিতে টং ঘরে অবস্থান নেয়। এ সময় ১০/১২ জনের অপহরণকারী চক্রের সদস্য তাদের অস্ত্রের মুখে তুলে পাহাড়ে নিয়ে যায়।

পুলিশ জানায়, খবর পেয়ে ঈদগাঁও পুলিশ তদন্ত  কেন্দ্রের ইনচার্জ মোঃ আসাদুজ্জামানের নির্দেশে এএসআই লিটনুর রহমান জয়, এসএসআই জামাল উদ্দীন সঙ্গীয় একদল ফোর্স শনিবার (৯ মার্চ) সকালে দ্রুত পাহাড়ে ঢুকে পড়ে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে অপহরণকারী চক্র পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়ে। পুলিশও অপহরণকারী চক্রদের লক্ষ করে গুলি ছুঁতে ছুড়তে গভীর পাহাড়ে ডুকে পড়ে। বিকাল ৩টার দিকে অহরণকারী চক্র গহীন জঙ্গলের ভেতর অপহৃত ৩ জনকে ফেলে পালিয়ে যায় ।

পরে অপহৃত সদরের ইসলামাবাদ ইউনিয়নের গজালিয়া গ্রামের আবু কালামের ছেলে আবু তালেব (২৬), ঈদগাঁও ইউনিয়নের পশ্চিম ভাদিতলা গ্রামের আবদু সালামের ছেলে আবদু শুক্কুর (৪৫), একই এলাকার ফজিউর রহমানের ছেলে মুজিব (৫০)কে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। অপহৃতদের উদ্ধার করে তদন্ত কেন্দ্রের হেফাজতে নিয়ে যায়।

অপহরণের শিকার ৪ ব্যক্তিকে মুক্তিপণ এবং কোন সংঘাত ছাড়াই অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করতে পারায় পুলিশ অফিসার এএসআই লিটনুর রহমান জয় সহ পুলিশকে সাধুবাদ জানিয়েছেন স্থানীয়রা। অভিযানের সময় ঈদগাহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব,ছৈয়দ আলম, ইউ পি সদস্য জিয়াউল হক ও এলাকার জনসাধারণ এবং ঈদগাও ইউনিয়ন কমিউনিটি পুলিশিং সদস্যরা পুলিশকে সহযোগীতা করেন বলে জানা যায়।

এলাকাবাসী জানিয়েছেন,এর আগে প্রায় সময় বিভিন্ন  লোকজনকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়ের ঘটনা ঘটে আসছিল। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জোরালো অভিযানে অপহরণের ঘটনা বেশ কিছুদিন বন্ধ থাকার পর আবারও অপহরনকারী চক্রের সদস্যরা একের পর এক অপহরণ ঘটনা সংগঠিত করছে। এতে করে স্থানীয়দের মধ্যে অপহরণসহ অজানা আতংক বিরাজ করছে।

 

০৯ মার্চ, ২০১৯ ২৩:৫৭:১০