তেঁতুলিয়ায় নিখোঁজের তিনদিন পর শিশুর লাশ উদ্ধার
পঞ্চগড় প্রতিনিধি
অ+ অ-প্রিন্ট
তেঁতুলিয়া রনচন্ডীতে তিনদিন নিখোঁজের পর আরাফাত (৮) নামের এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার বেলা এগারটার দিকে রনচন্ডী দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন বাড়ির পাশে ছোট্ট পুকুর হতে লাশ উদ্ধার করা হয়। গত ২১ ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার দুপুরে বাড়ি হতে হারিয়ে যায় সে। তিনদিন নিখোঁজের পর বাড়ির সংলগ্ন ছোট্ট পুকুরে লাশ পাওয়া যায়। নিহত শিশু উপজেলার রনচন্ডীর এলাকার একরামুল হকের পুত্র। পরিবারের অভিযোগ, শিশু আরাফাত পানিতে পড়ে মরেনি, তাকে হত্যা করা হয়েছে। তবে বিকেলে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা আধুনিক হাসপাতালে মর্গে পাঠিয়ে দেন মডেল থানা পুলিশ।

পুলিশ ও পরিবার জানায়, গত বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে রনচন্ডী উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন স্থান হতে আরাফাত হারিয়ে যায়। হারানোর পর হতে আত্মীয়-স্বজন, প্রতিবেশী সকলের বাড়িতে খোজ নিয়েও তার কোন খোজ পাওয়া যায়নি। নিহত শিশুর সম্পর্কে নানা আনোয়ার হোসেন ও  সেকেন্দার আলী জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে আরাফাত হারিয়ে গেলে আমরা সর্বত্র খোঁজাখুজি করি। মাইকিংসহ থানায় জিডি করি। কিন্তু যে স্থান হতে নাতির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে, সে স্থানটিও অনেকবার খোঁজাখুজি করা হয়। ফায়ার সার্ভিসের দমকল বাহিনী ও পুলিশ পর্যন্ত সন্ধান করেছে। পাওয়া যায়নি। সেখানে হঠাৎ করে নিখোঁজ নাতির লাশ মিলবে, সেটা নিয়ে আমাদের চরম সংশয় সৃষ্টি হয়েছে। তাকে হত্যা করে এখানে কেউ লাশ ফেলে রেখে গেছে অভিযোগ করছেন তারা। এ ঘটনায় ওই পরিবার জুড়ে বইছে শোকের মাতম।

এ বিষয়ে তেঁতুলিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জহুরুল ইসলাম বলেন, গত বৃহস্পতিবার থেকে শিশুটি নিখোজ ছিল। গতকাল শনিবার  সকালে বাড়ির পাশে পুকুরে শিশুটিকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। আইনগত জটিলতা সৃষ্টি যেন না হয় সে লক্ষে ময়না তদন্তের জন্য পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। রিপোর্ট আসার পর আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। 

 

 

  

 

 

২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০৯:০৬:১৬