আসামি ধরতে গিয়ে ‘পরকীয়া প্রেমিক’ ধরা
সিলেট প্রতিনিধি
অ+ অ-প্রিন্ট


বৃহস্পতিবার বিকেলে বিশ্বনাথ থানায় সাড়ে চার লাখ টাকা কাবিননামা মূলে সিলেটের বিশ্বনাথের এক প্রেমিক যুগলের বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। জানা গেছে, উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের পাঠাকইন গ্রামের বাসিন্দা মোবারক আলীর মেয়ে ফেরদৌসি আক্তার কল্পনার সঙ্গে লামাকাজি ইউনিয়নের ইসবপুর গ্রামের আসাবর আলীর ছেলে আলী হোসেনের সঙ্গে দীর্ঘ দিন ধরে মন দেওয়া-নেওয়া চলছিল। তাদের প্রেম প্রত্যাখান করে কল্পনার অন্যত্র বিয়ে দেয় তার পরিবার। দুই সন্তানের জন্মও দেন কল্পনা। তবুও গোপনে প্রেমের সম্পর্ক বহাল রেখেছিল তারা। এক পর্যায়ে কল্পনার স্বামী বিষয়টি জানতে পেরে তাকে তালাক দেন।

এদিকে বুধবার রাতে কল্পনাদের বাড়িতে কল্পনার ওয়ারেন্টভূক্ত ভাইকে ধরতে হানা দেয় পুলিশ। এসময় কল্পনার ঘরে পাওয়া যায় প্রেমিক আলী হোসেনকে। তাকে ধরে নিয়ে আসে পুলিশ। পরদিন বৃহস্পতিবার উভয়পক্ষের লোকজনের মধ্যস্থতায় থানা কম্পাউন্ডেই কাজী ডেকে প্রেমিক যুগলের বিয়ে দেওয়া হয়। এসময় স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বিয়ের সত্যতা স্বীকার করে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি জামাল মিয়া বলেন, উভয় পরিবারের সম্মতিতে সাড়ে ৪ লাখ টাকা কাবিন ধার্য করে থানায়ই তাদের বিয়ে দেওয়া হয়েছে। বিশ্বনাথ পুলিশ স্টেশনের ওসি শামসুদ্দোহা পিপিএম বলেন, ওয়ারেন্ট তামিল করেত গিয়ে কল্পনাদের ঘর থেকে আলী হোসেনকে আটক করা হয়।

 


২৪ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৮:১৬:২৩