বুদ্ধিমত্তা দিয়ে নিজের বাল্য বিয়ে বন্ধ করল স্কুলছাত্রী
নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি
অ+ অ-প্রিন্ট
নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে স্কুল ছাত্রী নাজনীন আক্তারের বুদ্ধিমত্তায় তার বাল্য বিয়ে বন্ধ করল উপজেলা নির্বাহী অফিসার। শিক্ষার্থী নাজনীন আক্তার উপজেলার শাহজালাল উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। শুক্রবার (১৯ জানুয়ারি) দুপুরে এ বাল্য বিয়ে বন্ধ করা হয়। সে আড়াইহাজার পৌরসভার নোয়াপাড়া গ্রামের ছৈয়ব খানের মেয়ে।

নাজনীন আক্তারের বরাত দিয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষক জানান, নাজনীনের পিতা-মাতা তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর করে বিয়ে দিচ্ছিল। এ ঘটনাটি নাজনীন আক্তার ফোনে তার স্কুলের প্রধান শিক্ষক জওহর লাল ঘোষকে জানান। পরে প্রধান শিক্ষক ঘটনাটি উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুরাইয়া খানকে অবগত করেন। দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুরাইয়া খানের ভ্রাম্যমান আদালত স্কুল ছাত্রী নাজনীন আক্তারকে উদ্ধার করেন এবং তার পিতা ছৈয়ব খানকে আটক করেন।

পরে পিতা ছৈয়ব খান তার মেয়েকে প্রাপ্ত বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবেন না বলে মুচলেকা দিলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরে আড়াইহাজার পৌরসভার সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর সামসুন্নাহারের জিম্মায় ও তদারকিতে স্কুল ছাত্রী নাজনীন আক্তারকে তার পিতার কাছে তুলে দেওয়া হয়েছে।

 

১৯ জানুয়ারি, ২০১৯ ১১:৩৪:২৭