প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে শিশুকন্যাকে হত্যা করেছে বাবা
বরিশাল প্রতিনিধি
অ+ অ-প্রিন্ট
শিশু সাবিহা আক্তার অথৈ (১১) বরিশাল সদর উপজেলার সাপানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী ছিল। বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান সে। শিশুকন্যাকে জন্মদাতা বাবাই পরিকল্পিতভাবে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। জিজ্ঞাসাবাদের মুখে মেয়েকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে গোলাম মোস্তফা- এমনটাই বুধবার দাবি করেছেন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোশারফ হোসেন। মোস্তফা বরিশাল সিটি করপোরেশনের কর্মচারী এবং সদর উপজেলার সাপানিয়া গ্রামের বাসিন্দা।

মঙ্গলবার বেলা পৌনে ১১টার দিকে সদর উপজেলার সাপানিয়া গ্রামের বাড়ির অদূরে বিদ্যালয়সংলগ্ন লেবুবাগানের মধ্যে সাদিয়ার লাশ পাওয়া যায়। তাকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে- এমন কল্পকাহিনী বলে প্রতিপক্ষ রাব্বী নামক একজনকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছিল গোলাম মোস্তফা। তবে মঙ্গলবার রাতে গোলাম মোস্তফাকে আটকের পর সে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে, তার কাছে ৮ লাখ টাকা পাবেন রাব্বী। ওই টাকা না দেয়ার উদ্দেশ্যেই মেয়েকে হত্যার করে দায় চাপাতে চেয়েছিল রাব্বীর ওপর।

বুধবার নিজ দপ্তরে এক সাংবাদিক সম্মেলন করে এমন হৃদয়বিদারক ঘটনা বর্ণনা করে পুলিশ কমিশনার মো: মোশারফ হোসেন বলেন, অথৈকে হত্যার অভিযোগ ওঠায় তার বাবা গোলাম মোস্তফাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা অনেক বিষয় নিশ্চিত হয়েছেন। তবে তদন্তের স্বার্থে এর বেশি বলতে অপরাগতা জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মো: মাহফুজুর রহমান, উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) হাবিবুর রহমান প্রমুখ।

 

 

 

০৮ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:২৯:১৭