খুলনা বেতারে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি ভাস্কর্য
মাওলা বকস, খুলনা
অ+ অ-প্রিন্ট
বাংলাদেশ বেতার খুলনা কেন্দ্রে নির্মিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের নান্দনিক স্মৃতিভাস্কর্যটি উদ্বোধনের অপেক্ষায়। খুলনা-যশোর লোয়ার রোডের নূর নগর এলাকা  বেতার কেন্দ্রে ছয় ফুট ফাউন্ডেশনের উপরে পনের ফুট দৈর্ঘ্যরে ভাস্কর্যটিতে বিশ্বখ্যাত ৭ মার্চের ভাষণের প্রতিকৃতি ফুটে উঠেছে। যা জাতিকে স্মরণ করিয়ে দেবে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে।

ভাস্কর্য ফাউন্ডেশনের বাম দিকে জাতীয় চার নেতা ও ডান দিকে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পীদের প্রতিচ্ছবি প্রস্ফুটিত হয়েছে নান্দনিকভাবে। সমগ্র ভার্স্কর্যটির ব্যাকগ্রাউন্ডে রয়েছে ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) জাতির স্থপতি শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ভাষণকালের শৈল্পিক নিদর্শন। এছাড়াও বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্য কমপ্লেক্সের মধ্যে রয়েছে আরো চারটি ছোট আকৃতির ভাস্কর্য। যাতে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক সব মুহূর্ত স্মরণ করিয়ে দেবে প্রজন্মের পর প্রজন্মকে।

ছোট ভাস্কর্যের একটিতে পবিত্র সংবিধানে বঙ্গবন্ধুর প্রথম স্বাক্ষর করার দৃশ্যপট, দ্বিতীয়টিতে ১৯৭৪ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর জাতি সংঘে বাংলায় ভাষণ দেবার ঐতিহাসিক মুহূর্ত, তৃতীয়টিতে ছয়দফা ঘোষণাকালীন এবং চতুর্থটিতে ১৯৭১ সালের ফেব্রয়ারিতে ঢাকার ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে জাতীয় ও প্রদেশিক পরিষদের নব-নির্বাচিত এমএনএ এবং এমপিদের সমাবেশে স্বাধীকার আন্দোলনে শহিদদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করার দৃশ্য ফুটে উঠেছে বঙ্গবন্ধুর।

অনিন্দ্য সৌন্দর্য্যমন্ডিত স্মৃতিভাস্কর্য বাংলাদেশ বেতারের সহযোগিতায় তথ্য মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে গণপূর্ত বিভাগ আট কোটি ২৯ লাখ ৯১ হাজার টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করেছে। আগামীকাল রবিবার স্মৃতিভাস্কর্যটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনের কথা রয়েছে।

সূত্রমতে, খুুলনা বেতারের সামনে বঙ্গবন্ধু স্মৃতিভাস্কর্যে স্কাল্পচার বেইজ, এক্সিভিশন গ্যালারী, এম্ফি থিয়েটার, ফাউন্টেন, গ্রিন্ডল্যান্ড স্কেপিং, ইন্টারনাল রোড, প্লান্টার বক্স, ফ্লাওয়ার বেড, মডেল অব ট্রাকচার, স্কাল্পচার, আর্ট ওয়ার্ক, স্টোরেজ ও ভাস্কর্যটির চারদিকে ব্রোঞ্জের রিলিফ ওয়ার্কের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর জীবনের বিভিন্ন ঘটনা প্রবাহ ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।

 

১২ আগস্ট, ২০১৮ ১০:১৯:৩৭