সেনা সদস্য ইসমাইলের লাশ সেনবাগের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন
মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, নোয়াখালী
অ+ অ-প্রিন্ট
কুয়েত শান্তি মিশনে মৃত্যু বরণকারী বাংলাদেশী সেনা সদস্য (প্রশিক্ষন অফিসার) নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার বীজবাগের মোঃ ইসমাইলের লাশ বুধবার বিকেলে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

এরআগে বুধবার সকালে বাংলাদেশ এয়ারওয়েজ যোগে ইসমাইলের লাশ জিয়া আন্তজার্তিক বিমানবন্দরে পৌছলে তাল লাশ গ্রহন করেন কুমিল্লা সেনা নিবাসের সিনিয়র অফিসার মেজর আলিভ। সেখান থেকে লাশ কুমিল্লা সেনা নিবাসে জায়নাজা অনুষ্ঠিত সেখান থেকে লাশ সরাসরি বিকাল সাড়ে ৪টার সময় পৌছে  সেনবাগ উপজেলার ৮নং বীজবাগ ইউপির বালিয়াকান্দি গ্রামের আলতু মিয়ার নতুন বাড়ীতে। লাশ বাড়িতে পৌছলে শুরু হয় পরিবারের সদস্য সহ এলাকার শতশত নারী পুরুষের শোকের মাতম। এসময় ইসমাইলের লাশ এক নজর দেখার জন্য ওই বাড়িতে ভিড় জমায় শতশত নারী পুরুষ । এরপর বিকাল পৌনে ৬টায় দিকে বালিয়াকান্দি ডিগ্রি কলেজের মাঠে জায়নাজা অনুষ্ঠি হয়। এসময় কুমিল্লা সেনা নিবাসের সিনিয়র অফিসার আলিভের নেতৃত্বে রাষ্ট্রীয় সম্মান গার্ড অপ অনার প্রদান করা করায়। পরে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফর করা হয়। দাফন শেষে সেনা বাহিনী প্রদানের পক্ষ থেকে ইসমালের কবরে পুস্পস্তবক অর্পন ও জাতীয় পতাকা এবং সেনাবাহিনীর পতাকা তার পিতার হাতে তুলে দেন মেজর আলিভ। 

ইসমাইল সেনবাগ উপজেলার ৮নং বীজবাগ ইউনিয়নের বালিয়াকান্দি গ্রামের আলতু মিয়ার নতুন বাড়ীতে তোফায়েল আহম্মদের ছেলে। সে। স্ত্রী বিবি খাদিজা,মেয়ে জাহিন সাবা বিনতে ইসমাইল ও নবজাতক ছেলে আল সাবা আল ইসমাইল রেখে গেছেন। ইসমাইল ৪ ভাই ২ বোনের মধ্যে সে ২য়। 

উল্লেখ্য, ইসমাইল  গত ( ২০ জুলাই) কুয়েতের স্থানীয় সময় শুক্রবার ভোর ৫টার সময় হৃদযন্ত্রেও ক্রিড়া বন্ধ হয়ে(হার্টএ্যাকে) মারা যায় । পরিবারের সদস্য চাচা দ্বীন মোহাম্মদ এম এ জানান, এক বছর আফ্রিকায় সফল ভাবে শান্তি মিশন শেষে দেশে আসে। এরপর গত ৩/৪ মাস পূর্বে ৫ বছরের জন্য কুয়েতে শান্তি মিশনে যোগ দেয় ইসমাইল। 

 

২৬ জুলাই, ২০১৮ ০৬:১৯:৩৮