জিন তাড়ানোর নামে ছয়মাস ধরে কিশোরীকে 'ধর্ষণ'
কুমিল্লা প্রতিনিধি
অ+ অ-প্রিন্ট
জিন তাড়ানোর নাম করে ছয়মাস ধরে কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে এক কবিরাজের বিরুদ্ধে। ধর্ষণের শিকার মেয়েটি অন্তঃস্বত্তা হওয়ায় গ্রামবাসী সেই কবিরাজকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে।

সোমবার (২৩ জুলাই) ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষণের অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধর্ষণের এই ঘটনাটি ঘটেছে কুমিল্লার বরুড়ায়।

জানা গেছে ধর্ষণের অভিযুক্তের নাম আবুল কাসেম (৬৫)। কথিত কবিরাজ কাসেম বরুড়া উপজেলার মথুরাপুর গ্রামের হাবিব উল্লাহর ছেলে। এ ঘটনায় তাকে আদালতের মাধ্যমে গতকাল কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে বরুড়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, আবুল কাসেম এলাকায় কথিত জিন দ্বারা ঝাড়ফুঁকের মাধ্যমে বিভিন্ন রোগের অপচিকিৎসা দিয়ে আসছেন। গত ছয় মাস ধরে তিনি জিন তাড়ানোর কথা বলে এক কিশোরীকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। একপর্যায়ে কিশোরী অন্তঃস্বত্তা হয়ে পড়লে পরিবারের লোকজন বিষয়টি স্থানীয়দের জানান।

রোববার সন্ধ্যায় এলাকাবাসী আবুল কাসেমকে আটক করে পুলিশে দেন। বরুড়া থানার ওসি আজম উদ্দিন মাহমুদ জানান, কথিত কবিরাজ আবুল কাসেমকে আটক করা হয়েছে। ধর্ষণের শিকার কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে কুমিল্লা মেডিকেলে।

 

২৪ জুলাই, ২০১৮ ১০:৪২:৫৭