বরগুনায় অবৈধ ভাবে বালু উত্তলোনে ভাঙন
বরগুনা প্রতিনিধি
অ+ অ-প্রিন্ট
বরগুনা সদর উপজেলার  বড় গৌরিচন্না ইউনিয়ন ভূমি অফিসের  তহশিল দার প্রভাষ চন্দ্র'র যোগসাজশে ড্রেজারের মাধ্যমে খাল থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তলোনের অভিযোগ পাওয়া গেছে বালু উত্তলোনের কারনে খালের দুই পাড়ে বিভিন্ন স্থানে  ভাঙন শুরু হয়েছে। 

সরেজমেিন গিয়ে জানা যায় , বরগুনা স্থানীয় সরকার বিভাগ (এলজিইডির) আওতায় সদর উপজেলার ২নং গৌরিচন্না ইউনিয়নের বেতবুনিয়া গ্রামের কাচা রাস্তাটি  সম্পূর্ণ বিটুমিন কার্পেটিং দিয়ে দুই কিলোমিটার রাস্তা  নির্মান করার লক্ষে ১ কোটি ৫৩ লাখ ১৪ হাজার টাকা বরাদ্দ দিয়েছে সরকার। এরমধ্য রাস্তায় বালু বাবদ নির্ধারন করা হয়েছে ৯ লক্ষ টাকা। আর কাজটি চালিয়ে যাচ্ছে এ্যাটম এন্টার প্রাইজ নামের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। ওই প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে বালু ভরাটের কাজটি ঠিকায় নিয়ে করছেন ঠিকাদার  দেলোয়ার হোসেন।বালু উত্তলোনের বিষয়ে  তিনি মুঠোফোনে জানান, বালু ভরাটের কাজটি আমি করাচ্ছি। বালু উত্তলোনের জেলা প্রশাসনের অনুমোতি নেই তারপরেও আমি বালু উত্তোলন করি । 

স্থানীয়রা অভিযোগ করে জানান, গত এক মাস যাবত এভাবে খাল থেকে বালু উত্তলোন করছে ঠিকাদার। এতে খালের দুই পাড়ের ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে,ভাঙ্গনের কারনে গাছপালা খালের মধ্যে পরে গেছে। বার বার ঠিকাদার ও তহশিলদার প্রভাষ চন্দ্রের কাছে অভিযোগ করেও কোনো ফল পাইনি। 

এ বিষয়ে প্রভাষ চন্দ্রের কাছে জানতে চাইলে তিনি মুটো ফোনে জানান সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে জেনে আমি ঘটনা স্থানে গিয়ে ঠিকাদার এ্যাটম এন্টার প্রাইজকে বালু উত্তলোন বন্ধ করতে  নিষেধ করেছি ।

বরগুনা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (ভূমি) মো. আনোয়ারুল নাছের জানান, লাকুর তলা খাল থেকে বালু উত্তলোনের ইজারা দেয়া হয়নি ।

যারা বালু উত্তলোন করেছে তারা অবৈধভাবে কাজটি করছে । বিষয়টি শুনেই সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে বালু উত্তলোন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

 

০৭ জুলাই, ২০১৮ ১১:২৯:৩৫