খুলনায় আ’লীগ নেতার ওপর হামলা, নিজ দলের ২০ জনের নামে মামলা
মাওলা বকস, খুলনা
অ+ অ-প্রিন্ট
খুলনা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান জামালের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। রোববার রাতে জেলা তাঁতী লীগের আহবায়ক সুমন আহম্মেদ খান বাদী হয়ে দিঘলিয়া থানায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় দিঘলিয়া সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোল্লা ফিরোজ হোসেন ওরফে ফিরোজ মোল্লাসহ ২০ জনের নাম উল্লেখ পূর্বক অজ্ঞাত পরিচয়ের আরও ১০-১৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. হাবিবুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এজাহারভূক্ত অপর আসামিরা হচ্ছেন ইউসুফ মোল্লা ওরফে তহিদুল, সদর ইউপির ৪নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার) মো. সেলিম, মো. হায়দার শেখ, মো. বাবুল শেখ, মিশু শেখ, মো. হাফিজ শেখ, মো. মজহারুল ইসলাম ওরফে পরান, মো. রসুল শেখ, মো. শওকত ওরফে শকা, মো. শওকত শেখ, মো. দেলোয়ার খান, মো. মিরন শেখ, মো. আলাউদ্দিন শেখ, মো. আশরাফ বিশ্বাস ও সুমনসহ ২০ জন।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়, গত ২৯ জুন দিঘলিয়া উপজেলার পথের বাজারে যুবলীগের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান শেষে আওয়ামী লীগ নেতা কামরুজ্জামান জামালসহ ২০/২৫ জন নেতাকর্মী খুলনার উদ্দেশে রওনা হন। রাত সাড়ে ৭ টার দিকে ফেরি পার হওয়ার জন্য স্থানীয় নগরঘাটে অপেক্ষায় ছিলেন। এ সময় উল্লিখিত ব্যক্তিরা লোহার রড, রাম দা, কাটা রাইফেল ও লাঠিসোঠা নিয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে কামরুজ্জামান জামাল, জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক অ্যাড. শাহ আলম, গাড়িচালক জসিমসহ কয়েকজন আহত হন। এমনকি নিরাপদে যাওয়ার সময় আসামি মিশু শেখ জামালকে লক্ষ্য করে গুলি করে। কিন্তু অল্পের জন্য গুলি লক্ষভ্রষ্ট হয়। এ সময় ৫টি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয়া হয়।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে দিঘলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. হাবিবুর রহমান বলেন, দিঘলিয়া সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফিরোজ মোল্লাসহ ২০ জনের নাম উল্লেখ পূর্বক অজ্ঞাত পরিচয়ের আরও ১০-১৫ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে, এজারহারভূক্ত কোন আসামিকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। অভিযান চলছে।

 

০৩ জুলাই, ২০১৮ ২৩:২৩:৫৩