সেনবাগে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ইউপি চেয়ারম্যানসহ আহত ৩০
মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, নোয়াখালী
অ+ অ-প্রিন্ট
নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার ১নং ছাতারপাইয়া ইউনিয়নের তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ইউপি চেয়ারম্যান আবদুর রহমান সহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে। পরে খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৯টারদিকে সেনবাগ ও সোনাইমুড়ি থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ১০ রাউন্ড রাবার বুলেট ছুড়ে পুরস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। 

জানাগেেেছঃ ছাতারপাইয়া পূর্বপাড়ার গ্রামেরএক যুবক পশ্চিম পাড়ার গোয়ালা বাড়ির গিয়াস উদ্দিনকে মোবাইল ফোনে গালাগাল করে। এর জেরে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গিয়াস উদ্দিন তার লোকজনকে নিয়ে পূর্বপাড়ায় গিয়ে ওই যুবককে মারধর করে। ওই ঘটনাটি দ্রুত পূর্ব পাড়ায় পৌছলে তারা একজোট হয়ে ছাতারপাইয়া বাজারে থেকে পুশ্চিম পাড়ার দিকে অগ্রসর হতে চাইলে স্থানীয় চেয়ারম্যান আবদুর রহমান তাদরে বাধা দিয়ে আটকিয়ে দেয়। পূর্বপাড়ার লোকজন বাজারে অবস্থান করছে এমন খবর পশ্চিম পাড়ায় পৌছলে ওই গ্রামের সাবেক মেম্বার তোফাজ্জল হক প্রকাশ তফা মেম্বারের নেতৃত্বে পশ্চিম পাড়ার লোকজন ছাতারপাইয়া বাজারে এসে চেয়ারম্যান আবদুর রহমানের ওপর হামলা চালায়। এসময় পূর্ব ও পশ্চিমপাড়ার দুই গ্রামবাসীর লোকজনের মধ্যে ধাওয়া পাল্ট ধাওয়া ও সংঘর্ষ শুরু হয়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হয়। আহতদেওর মধ্যে চেয়ারম্যান আবদুর রহমান,কিবরিয়া ও রুবেলে নাম জানাগেলেও তাৎক্ষনিক অন্যদের নাম পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।আহতদেও বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ওই সংঘর্ষের ঘটনাটি শুরু হয় মঙ্গলবার(২২ মে) রাত ৮ থেকে । এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থেমে থেমে সংঘর্ষ চলছিলো।

সেনবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মাঈন উদ্দির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান। 

 

 

২৩ মে, ২০১৮ ১১:৩৬:২১